নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: আগামী ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিতব্য একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইশতেহার ঘোষণা করেছে বিএনপিসহ ২৩ দলীয় জোটের সমন্বয়ে গঠিত দল জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।
আর ক্ষমতায় আসলে একাত্তরের যুদ্ধাপরাধীদের বিচার অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি দিয়ে ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহার ঘোষণাকে হাস্যকর ও জনগণের সাথে ভাওতাভাজি বলে মন্তব্য করেছেন নারায়ণগঞ্জ মহাজোটের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ।

এব্যাপারে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের জাতীয় পরিষদের সদস্য এড. আনিসুর রহমান দিপু নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, ‘যুদ্ধাপরাধীদের সংগঠন জামায়াতকে সাথে নিয়ে নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করে আবার ক্ষমতায় আসলে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি দেয়া নিতান্তই হাস্যকর বিষয়। ঐক্যফ্রন্ট তাদের নির্বাচনী ইশতেহারে এমন প্রতিশ্রুতি দিয়ে জনগণের সাথে প্রতারনা করেছে।’

নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই বলেন, ‘যারা যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বাঁধাগ্রস্থ করতে বঙ্গবন্ধু কণ্যা শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে একাধিকবার বোমা হামলা চালিয়েছিল, সেই স্বাধীনতা বিরোধী জামায়াত শিবিরের সাথেই জোট করে এখন নির্বাচনে গিয়ে ঐক্যফ্রন্ট ক্ষমতায় আসলে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তাদের নির্বাচনী ইশতেহারে। যা কিনা জনগণের সাথে শুধুই তামাশা করা হয়েছে।’

নারায়ণগঞ্জ জেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক আবুল জাহের বলেন, ‘ক্ষমতায় আসলে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার অব্যাহত রাখার যে প্রতিশ্রুতি ঐক্যফ্রন্ট দিয়েছে তা দেশের জনগণ কখনো বিশ^াস করবে না। এটা শুধু নির্বাচনী বৈতরনী পার হওয়ার জন্য ঐক্যফ্রন্টের একটা স্ট্যান্ডবাজি।’

মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এড. খোকন সাহা বলেন, ‘ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহারে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি দেয়া জনগণের সাথে ভাওতাবাজির সামিল। এটা তাদের পলিটিক্যাল স্ট্যান্ডবাজি। যারা যুদ্ধাপরাধীদের সংগঠনের সাথে জোটবদ্ধ হয়ে নির্বাচন করে জাতির সাথে এমন তামাশার ইশতেহার ঘোষণা করেন তাদের আগামী ৩০ ডিসেম্বর ব্যালটের মাধ্যমেই জনগণ উপযুক্ত জবাব দিবেন।’

তবে এব্যাপারে জানতে চাইলে কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ¦ আনোয়ার হোসেন।

তিনি বলেন, ‘ঐক্যফ্রন্ট তাদের নির্বাচনী ইশতেহারে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে এটা তাদের ব্যাপার। এনিয়ে আমি কোন মন্তব্য করবো না।’

প্রসঙ্গত, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়ী হয়ে সরকার গড়লে একাত্তরের যুদ্ধাপরাধীদের বিচার অব্যাহত রাখবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে বিএনপিসহ ২৩ দলীয় জোটের গঠিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

সোমবার (১৭ ডিসেম্বর) দুপুরে রাজধানীর মতিঝিলের হোটেল পূর্বাণী ইন্টারন্যাশনালে সংবাদ সম্মেলন করে এই প্রতিশ্রুতিসহ ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহার ঘোষণা করেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন।

নির্বাচনে জয়ী হলে ৫ বছরে ৩৫ প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের ঘোষণা দিয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির মহাসচিব ও ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ ২৩ দলীয় জোটের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here