নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: জনপ্রতিনিধি প্রশাসনের আশ্বাসের পরেও দাবী বাস্তবায়ন না হওয়ায় দীর্ঘদিন চুপসে থাকার পর এবার আসন্ন রমজানকে ঘিরে দাবী আদায়ে ফের আন্দোলনে নামছে নগরীর ফুটপাতের হকাররা।
শনিবার (২১ এপ্রিল) সন্ধ্যায় এক বিবৃতিতে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন নারায়ণগঞ্জ হকার্স সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি মো: আসাদুল ইসলাম আসাদ।

তিনি বলেন, ‘গত বছরের ২৫ ডিসেম্বর থেকে পুনর্বাসনের পূর্বে উচ্ছেদ অভিযান বন্ধের দাবীতে নগরীর ফুটপাতের হকাররা মেয়র, এমপি, ডিসি, এসপিকে স্মারকলিপি প্রদানসহ শান্তিপূর্ণ আন্দোলন চালিয়ে আসছেন। যার পরিপ্রেক্ষিতে গরীবের বন্ধু নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ শামীম ওসমানের নির্দেশনা মোতাবেক হকাররা ফুটপাতে বসতে গেলে একটি অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটে যায়। এরপর নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন মেয়র ডা: সেলিনা হায়াত আইভী স্থানীয় জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের সাথে বৈঠক করে বি বি রোড ব্যাতীত নগরীর অন্যত্র ফুটপাতে নির্দিষ্ট সময়ের জন্য হকারদের বসার অনুমতি দেন। কিন্তু নগরীর ফুটপাতের বি বি রোডের শতকরা ৭০ ভাগ হকার থাকায় সকলে এখনও ফুটপাতে বসতে না পেরে অর্ধাহারে আনাহারে দিন যাপন করছেন।’

আসাদুল ইসলাম বলেন, ‘সম্প্রতি হকারদের বি বি রোডে আলোচনা সাপেক্ষে বসার ব্যাপারে স্থানীয় প্রশাসন আশ্বাসের বানী শুনালেও বাস্তবে সময়ক্ষেপন ছাড়া আর কিছুই হচ্ছে না। মাননীয় এমপি সেলিম ওসমান বি.বি রোডে বসার সুবিদার্থে মেয়রের কাছে অনুমতি চাওয়ার আশ্বাস দিলেও কার্যত মেয়রের কাছ থেকে আমরা কোন সুবিধাই পাইনি। উপরন্তু সম্প্রতি হকারদের জব্দকৃত মালামাল ফেরতের আশ্বাস দিয়ে সিটি মেয়র ডা: সেলিনা হায়াত আইভী সেগুলো নিলামে বিক্রি করে দিয়েছেন বলে আমরা গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদে জানতে পারি।’

তিনি আরো বলেন, ‘আগামী মে মাস থেকে রমজান মাস শুরু হচ্ছে। তাই রোজার মাসে নগরীর বিবি রোডে হকাররা যেন ব্যবসা পরিচালনা করতে পারে এবং মেয়রের প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী চাষাড়া হকার্স মার্কেট ভেঙ্গে খালি স্থাপনা করার দাবীতে রবিবার (২২ এপ্রিল) সকাল ১০ টায় নগরীর চাষাড়াস্থ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গন থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হবে।’
এরপরেও যদি দ্রুত বি বি রোডের হকারদের বসার ব্যাপারে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করা না হয়, তাহলে পুনরায় বৃহত্তর আন্দোলন করা হবে বলেও হুঁশিয়ারী দেন তিনি।

উল্লেখ্য, হকার ইস্যুতে গত ১৬ জানুয়ারী নগরীতে সাংসদ শামীম ওসমান সমর্থক ও মেয়র আইভী সমর্থকদের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ ঘটে। যা নিয়ে গোটা দেশজুড়ে সমালোচনার সৃষ্টি হয়। পরবর্তীতে এই সংঘর্ষের ঘটনায় অজ্ঞাত ৫শ’ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন সদর মডেল থানা পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here