নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: পবিত্র মাহে রমজানের প্রথম জুমা’র নামাজে নারায়ণগঞ্জের প্রতিটি মসজিদে নেমেছিলো মুসল্লিদের ঢল। তিল ধরানো ঠাই ছিলো না কোনো মসজিদে। নামাজ শেষে দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনায় আল্লাহ’র রহমত পেতে মসজিদে মসজিদে করা হয় বিশেষ দোয়া-মোনাজাত।
রবিবার থেকে শুরু হয়েছে মাস ব্যাপী পবিত্র মাহে রমজান। মাহে রমজানের ষষ্ঠ দিন শুক্রবার এবং জুমা’র বার। এজন্য নারায়ণগঞ্জ নগরীর ছোট বড় সকল মসজিদেই ছিলো ধর্ম প্রাণ রোজাদার মুসল্লিদের উপচে পড়া ভীড়। তিল ধরানোর ঠাই ছিলো না মসজিদের ভেতর কিংবা বাইরেও|

জুমা’র নামাজের সময় হওয়ার পূর্বে থেকেই নামাজের জন্য প্রস্তুতি নিতে থাকে বিভিন্ন বয়সের রোজাদার ও ধর্মপ্রান মুসল্লিরা। চার দিকে আজানের ধ্বনি বেজে উঠতেই মুসল্লিরা সারি বেধে চলেন মসজিদের দিকে। সকল বয়সের মানুষের পদচারনায় মুখোর হয়ে যায় মসজিদ প্রাঙ্গন।

এদিকে পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষে শুক্রবার রমজানের প্রথম জুমা’য় মসজিদগুলোতে বিশেষ খুদবা ও বয়ান অনুষ্ঠিত হয়। রমজানের পবিত্রতা রক্ষা, রহমতের ১০ দিন মুসলমানদের করনীয় এবং উম্মতদের নিয়ে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সঃ) এর চিন্তাধারার বিষয় নিয়ে বিশেষ বয়ান করেন ইমামগন।


সরেজমিনে দেখাগেছে, নারায়ণগঞ্জের মধ্যে ডিআইটি জামে মসজিদ, নূর মসজিদ, ফকিরটোলা জামে মসজিদ, মাসদাইর কবরস্থান জামে মসজিদ, বাগে জান্নাত জামে মসজিদ, মাসদাইর বাজার বায়তুল আমান জামে মসজিদসহ প্রতিটি মসজিদের ভেতর এবং বরান্দা মুসল্লিদের পদচারনায় মুখরিত থাকায় বাইরের কাপড়, জায়নামাজ, পলিথিন ও কাগজ বিছিয়ে জুমা’র নামাজ আদায় করেন মুসল্লিরা।

ডিআইটি জামে মসজিদ, কবরস্থান জামে মসজিদসহ অনেক মসজিদের সামনের সড়কগুলোতেও দেখা গেছে মুসুল্লিরা দাড়িয়ে গেছেন রমজানের প্রথম জুমা’র নামাজ আদায় করতে। নামাজ শেষে দেশ ও মুসলিম উম্মার শান্তি ও কবরবাসী মা, বাবা ও আত্মীয়-স্বজনদের রূহের মাগফেরাত কামনায় মহান আল্লাহ রব্বুল আলামিন এর নিকট দোয়া ও প্রার্থনা করেন মুসুল্লিরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here