নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: মিয়ানমারে রাখাইন রাজ্যের রোহিঙ্গা জাতিগোষ্ঠীকে নির্মম ভাবে নিধন, নির্যাতন ও ভিটা মাটি থেকে বিতাড়ণের প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে “আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী”।
শনিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১ টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

সংগঠনের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব নুরউদ্দিন আহম্মেদ এর সভাপতিত্বে এক বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসূচীতে উপস্থিত ছিলেন দৈনিক বিঁষের বাঁশি’র সম্পাদক সুভাষ সাহা, হাজী মোঃ সামসুল আলম, হাজী আহম্মদ আলী বেপারী, শ্রমিক নেতা মাহামুদ হোসেন, রমজানুল রশিদ, রেড ক্রিসেন্ট সম্পাদক আঃ রহমান লিটন, মোঃ মনির হোসেন, মোঃ হোসেন কাজল, মঈন আহসান, দিলারা মাসুদ ময়না, আজমত উল্লাহ্ খন্দকার, হাজী মোঃ সেলিম হোসেন, মাকিদ মুস্তাকিম শিপলু, আঃ সাত্তার ভুট্টু, হাজী মোঃ রুহুল আমিন, আবুল সরদার, ইসমাইল করিম, তোফাজ্জল হোসেন, খাজা আহম্মদ, নাজমুল হাসান নান্নু, শফিকুল ইসলাম খান, রাজিউদ্দিন প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ‘ঐতিহ্যবাহী স্বাধীন আরাকান রাজ্য, যা বর্তমানে মিয়ানমারে দখলীভূক্ত হয়ে রাখাইন রাজ্যে পরিনত হয়েছে, যেখানে রোহিঙ্গা জাতি গোষ্ঠী বংশ পরম্পরায় শত শত বৎসর যাবৎ নিজ বাস ভূমিতে বসবাস করে আসছে। বিগত ১৯৬২ সালে নে উইন ক্ষমতা দখলের পর রোহিঙ্গাদের সাংবিধানিক অধিকার বাতিল করে। ১৯৭০ সাল থেকে রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব সনদ প্রদান বন্ধ করে দেয়। ১৯৭৪ সাল থেকে ভোটাধিকার কেড়ে নেওয়া হয়।’

‘এমতাবস্থায় ১৯৭৮ সালে রোহিঙ্গাদের উপর জুলুম নির্যাতন করে তাদের ভিটামাটি থেকে বিতাড়ন শুরু করে। বর্তমানে ১৯৮৪, ১৯৮৫, ১৯৯০ এবং ২০১২ সালে আগত প্রায় ৫ লক্ষ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অবস্থান করছে। তদুপরি মরার উপর খারার ঘা বর্তমানে ২০১৬ ডিসেম্বর মাসে এবং ২০১৭ এর ২৫ আগষ্ট থেকে আরও প্রায় ৫ লক্ষ রোহিঙ্গা কে তাদের বাড়িঘর জ¦ালিয়ে দিয়ে হত্যা নির্যাতন করে বাংলাদেশে বিতাড়ন করেছেন। এমনকি আরও ৫ লক্ষ নির্যাতিত রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশের অপেক্ষায় রয়েছে। আমরা কফি আনান প্রদত্ত তদন্ত কমিশনের পূর্ণ বাস্তবায়ন চাই এবং রোহিঙ্গাদের পূর্ণ নাগরিকত্ব দিয়ে তাদের নিজ বাসভূমি রাখাইন রাজ্যে পুনরায় প্রত্যাবর্তনের দাবী সহ জাতিসংঘ শান্তি রক্ষী বাহিনী মোতায়নের দাবী জানাই।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here