নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি, সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি: সিদ্ধিরগঞ্জ গোদনাইলে লক্ষ্মী নারায়ণ কটন মিলস উচ্চ বিদ্যালয়ে অভিভাবক প্রতিনিধি নির্বাচন জমে উঠেছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত ১০ প্রার্থী তাদের মননোয়ন পত্র সংগ্রহ করেছে। আগামী ৮ জুলাই বিকাল ৪ টা পর্যন্ত মননোয়ন সংগ্রহ ও জমা দিতে পারবেন প্রার্থীরা। এদিকে এ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে গোদনাইলে জুড়ে উৎসবের আমেজ লক্ষ্য করা গেছে। পাশাপাশি অভিবাবকরা প্রার্থীদের যোগ্যতা,সমাজিক অবস্থান ও শিক্ষাগত বিষয়টি বিচার করছেন। তারা কোন সন্ত্রাসী বা পেশি শক্তির কাছে বিদ্যালয়ের পরিচালনার দায়িত্বে ছেড়ে দেবে না।

জানাগেছে, গোদনাইলে ঐতিহ্য বাহি লক্ষ্মী নারায়ন কটন মিলস উচ্চ বিদ্যালয়ে অভিবাবক প্রতিনিধি নির্বাচন ২২ জুলাই অনুষ্ঠিত হবে। এতে অভিভাবকরা ২ বছরের জন্য তাদের ছেলে মেয়েদের লেখাপাড়া ও বিদ্যালয়ের সার্বিক উন্নতির ভার ৫ জন অভিভাবকের হাতে নেস্ত করবেন। এ ব্যবস্থা বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে করে থাকেন। সে নির্বাচন উপলক্ষ্যে ৫ জুলাই থেকে ৮ জুলাই বিকাল ৪ টা পর্যন্ত অভিভাবকরা মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ ও জমা দিতে পারবেন। এদিকে আনন্দ উৎসবের মধ্যে দিয়ে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত ১০জন প্রার্থী তাদের মননোয়ন পত্র সংগ্রহ করেছন।

বিদ্যালয়ে অভিবাবক প্রতিনিধি নির্বাচনের মননোয়ন পত্র সংগ্রহ করে নাসরিন জাহান মনি বলেন,এ বিদ্যালয়ে আমার বড় মেয়ে শিক্ষার্থী ছিলো, ছোট মেয়ে অধ্যায়ন রত রয়েছে। তাই বিদ্যালয়ে ভালো কিছু দিতে পারি কিনা তার জন্য প্রার্থী হয়েছি। বিদ্যালয়ে পড়ালেখার মান উন্নতি,বিদ্যালয়ের শিক্ষার আধুনিকায়ন ও বহির বিশে^র লেখাপড়ার যে ব্যবস্থা রয়েছে তা করার লক্ষেই নির্বাচনের প্রার্থী হয়েছি।

আরেক প্রার্থী সালাউদ্দিন আহমেদ বলেন, আমি বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছিলাম। পড়াশুনার মান যা ছিলো এখন তা নাই। তাই লেখাপড়ার মান বৃদ্ধির করার লক্ষ্য নিয়ে প্রার্থী হয়েছি।

এদিকে বিদ্যালয়ের অভিভাববক ও ভোটার রফিক, জানাম, লক্ষি, আসমা বলেন,বিদ্যালয়ে উন্নতির ও আমাদের ছেলে/মেয়েদের লেখাপড়ার মান বৃদ্ধি করে প্রতি বৎসর পরীখার ফলাফল ভাল করাবে,তাদের ভোট দিয়ে বিজয় করবো। পাশাপাশি শিক্ষিত ও সমাজে গ্রহন যোগ্যতা রয়েছে তাদের নির্বাচিত করে বিদ্যালয়ের পরিচালনায় আনবো এটাই আমাদের ভোটারদের চাওয়া। তারা আরো বলেন বিগত দিনে,অনেকে টাকার বিনিময়ে ভোট ক্রয় করেছেন। এভার তা হতে দেওয়া যাবেনা। যে প্রার্থী টাকা দিয়ে ভোট কিনবে তাকে ভোট না দেওয়ার অঙ্গিকার করেন (ভোটাররা) অভিবাকরা।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও নির্বাচন সচিব বিকাশ চন্দ্র দাস বলেন, বিদ্যালয়ে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রার্থীরা মননোয়ন পত্র সংগ্রহ করছে। বৃহস্পতিবার বিকাল পর্যন্ত ১০ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করেছেন। আগামী ৮ জুলাই প্রধান শিখকের কার্যালয়ে মননোয়ন পত্র বাছাই, ৯ জুলাই মননোয়ন পত্র প্রত্যাহার, ১০জুলাই বৈধ প্রার্থীদের তালিকা ও প্রতিক বরাদ্ধ ও ২২ জুলাই সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত বিরতিহীন বিদ্যালয়ে ভোট গ্রহন চলবে । ইতোপূর্বেই নির্বাচন কমিশন নির্বাচনী সকল প্রস্ততি সম্পূর্ন করেছে জানায়।

এদিকে এ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে গোদনাইল জুড়ে নির্বাচনী আমেজ রয়েছে চায়ের দোকান ও বাড়ি বাড়ি। তাই নির্বাচনটি জমজমাট হবে বলে আশা ব্যক্ত করেছে গোদনাইল বাসী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here