নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: শনিবার ১২ রবিউল আউয়াল। পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (স:)। এই দিনে আরবের মরু প্রান্তরে মা আমিনার কোল আলো করে জন্ম নিয়েছিলেন বিশ্বনবী হজরত মুহাম্মদ (স:)। আবার এই দিনেই তিনি পৃথিবী ছেড়ে চলে যান। তাই দিনটি মুসলিম উম্মাহর কাছে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (স:) নামে পরিচিত।
রসুলের (স:) জন্ম ও মৃত্যুর এই দিনটি মুসলমানদের কাছে মর্যাদা ও তাৎপর্যপূর্ণ। মুসলমানরা বিশেষ গুরুত্বের সঙ্গে এই দিনটি উদযাপন করে থাকেন। তাই বরাবরের মতো এবারও নারায়ণগঞ্জে ধর্মপ্রাণ মুসলমান ইবাদত-বন্দেগি, মিলাদ, জশনে জুলুস, আলোচনা, দোয়া মাহফিলসহ বিভিন্ন কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে দিবসটি উদযাপন করবেন।

শনিবার (২ ডিসেম্বর) ঈদে মিলাদুন্নবী উপলক্ষ্যে সকাল ৯ টায় শহরের মন্ডলপাড়া থেকে বিশাল জশনে জুলুসের মিছিল বের করা হবে। এরপর এখানে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। যেখানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখবেন আল্লামা সৈয়দ বাহাদুর শাহ্ আল মোজাদ্দেদী।

জানাগেছে, বিশ্বনবী হজরত মুহাম্মদ (স) জন্মের পূর্বেই পিতৃহারা এবং জন্মের অল্পকাল পর মাতৃস্নেহ থেকে বঞ্চিত হন। অনেক প্রতিকূলতার মধ্য দিয়ে চাচা আবু তালিবের আশ্রয়ে বড় হয়ে ওঠেন। চল্লিশ বছর বয়সে উপনীত হওয়ার পর তিনি মহান রাব্বুল আলামিনের থেকে নবুয়তের মহান দায়িত্ব লাভ করেন। আইয়ামে জাহেলিয়াতের অন্ধকার দূর করে তৌহিদের মহান বাণী পৌঁছে দিয়েছেন এই মহামানব। প্রচার করেছেন শান্তির ধর্ম ইসলাম। তার আবির্ভাব এবং ইসলামের শান্তির ললিত বাণীর প্রচার সারা বিশ্বে আলোড়ন সৃষ্টি করে। তিনি বিশ্ববাসীকে মুক্তি ও শান্তির পথে আহ্বান জানিয়ে সব ধরনের কুসংস্কার, গোঁড়ামী, অন্যায়, অবিচার ও দাসত্বের শৃঙ্খল ভেঙে মানবসত্তার চিরমুক্তির বার্তা বহন করে এনেছিলেন।

ইসলাম ধর্মমতে, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ মহামানব হযরত মুহাম্মদ (স) নবুয়তের সিলসিলায় শেষ নবী। মহানবী (স) দীর্ঘ ২৩ বছর এ বার্তা প্রচার করে ৬৩ বছর বয়সে ইহলোক ত্যাগ করেন।

এরপর থেকেই এই দিনে ঈদে মিলাদুন্নবী হিসেবে পালন করে আসছেন মুসলান ধর্মালম্বীরা।

এদিকে, নগরীতে জশনে জুলুসের মিছিলকে ঘিরে যেকোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে বলে জানান, সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মীর শাহীন শাহ্ পারভেজ।

তিনি নিউজ প্রচ্যের ডান্ডিকে জানান, ‘পুলিশ সুপার কার্যালয়ের বিশেষ শাখা থেকে পুলিশ সদস্যদের ডিউটি বন্টন করে দেয়া হয়েছে। সুন্দর ভাবে ঈদে মিলাদুন্নবী অনুষ্ঠান সম্পন্নে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা প্রদান করবে সদর মডেল থানা পুলিশ।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here