নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি, সোনারগাঁ প্রতিনিধি: ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে কাল শনিবার থেকে শুরু হচ্ছে হিন্দু সম্প্রদায়ের মহাসাধক শ্রী শ্রী লোকনাথ ব্রহ্মচারীর ১২৭তম তিরোধান উৎসব। এ উপলক্ষ্যে সোনারগাঁয়ের বারদীতে লোকনাথ ব্রহ্মচারীর আশ্রমে ৩ দিন ব্যাপী ধর্মীয় অনুষ্ঠানসহ লোকজ মেলার আয়োজন করা হয়েছে। উৎসবে অংশগ্রহনের জন্য এরইমধ্যে প্রতিবেশী দেশ ভারত, নেপাল, ভূটান ও শ্রীলংকা থেকে বিপুল সংখ্যক লোকনাথ ভক্ত বারদী আশ্রমে এসে পৌছেছেন। এছাড়াও দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা হাজার হাজার লোকনাথ ভক্তের পদচারনায় মুখরিত হয়ে উঠেছে আশ্রম এলাকা। উৎসব উপলক্ষ্যে আশ্রমে পূজা অর্চনা, গীতা পাঠ, কীর্তন, রাজভোগ, বাল্য ভোগ ও প্রসাদ বিতরন করা হয়।

হিন্দু স¤প্রদায়ের এ মহাপুরুষ ১৭৩০ খিস্ট্রাব্দে ভারতের পশ্চিম বঙ্গের চব্বিশ পরগনা জেলার বারাসত মহাকুমার অন্তর্গত চুরাশিচাকলা গ্রামে ধর্মীয় সাধক রামনারায়ণ ঘোষাল ও কমলা দেবীর ঘরে জন্মগ্রহন করেন। রাম নারায়ণের চতুর্থ পুত্র শ্রী লোকনাথ ব্রম্মচারী বাল্যকাল থেকেই পুথিগত বিদ্যার প্রতি আগ্রহী ছিলেন না। আধ্যাত্মিক জ্ঞান লাভের জন্য ১০ বছর বয়সে লোকনাথের পিতা সর্বশাস্ত্র পারদর্শী সন্ন্যাসী ভগবান গাঙ্গুলীর হাতে তুলে দেন তাকে। পরবর্তীতে তিনি জ্ঞান সাধনা ও সিদ্ধিলাভের জন্য হিমালয়ের দূর্গম পর্বতমালা, কাশীধাম ও চন্দ্রনাথ পাহাড়ে দীর্ঘ সময় ধ্যানে মগ্ন ছিলেন। শ্রী লোকনাথ স্থানীয় ডেঙ্গু কর্মকারের অনুরোধে বারদী এলাকায় আসেন এবং বারদীর বিখ্যাত নাগ পরিবার সাধনার জন্য তাকে এখানে একটি আশ্রম প্রতিষ্ঠা করে দেন। শ্রী লোকনাথ ব্রম্মচারী মৃত্যুর আগ পর্যন্ত বারদী আশ্রমেই অবস্থান করেন। তিনি বাংলা ১২৯৭ সালের ১৯শে জৈষ্ঠ  ১৬০ বছর বয়সে দেহ ত্যাগ করেন। লোকনাথ ব্রম্মচারীর তিরোধানের পর থেকেই হিন্দু স¤প্রাদায়ের লোকজন ব্যাপক আনুষ্ঠানিকতার মাধ্যমে প্রতি বছর তিরোধান উৎসব পালন করে আসছে।

লোকনাথ ব্রক্ষচারীর আশ্রম কমিটির সাধারণ সম্পাদক বিজয় কৃষ্ণ মোদী জানান, ১২৭ তম তিরোধান উৎসব উদযাপন উপলক্ষ্যে ইতিমধ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। দূর দূরান্ত থেকে আসা লোকনাথ ভক্তদের জন্য আশ্রমের ভেতরে অবস্থিত কয়েকটি তীর্থ নিবাসে নিরাপত্তার জন্য বিপুল পরিমাণ র‌্যাব-পুলিশ দায়িত্বে রয়েছেন। যানজট নিরসনে পুলিশের পাশাপাশি আশ্রম কমিটির পক্ষ থেকে স্বেচ্ছাসেবক কাজ করে যাচ্ছেন। বৃষ্টি ও রোদ থেকে রক্ষা পেতে ভক্তদের জন্য মন্দিরের বাইরের খোলা মাঠে সামিয়ানা টানানো হয়েছে। এ বছর প্রায় ১০লক্ষাধিক লোকনাথ ভক্তের আগমন ঘটবে বলে ধারনা করা হচ্ছে।

সোনারগাঁ থানার (ওসি) শাহ মোঃ মঞ্জুর কাদের পিপিএম জানান, লোকনাথ ব্রম্মচারীর আশ্রমে আসা ভক্তদের ব্যাপক নিরাপত্তা দিতে পুলিশ, র‌্যাব ও আনসার বাহিনীসহ বিভিন্ন আইন শৃঙ্খলারক্ষাকারী বাহিনী নিয়োজিত রয়েছে। ছিনতাই ও চুরি ঠেকাতে আশ্রমে মোবাইল টিম কাজ করছে। আশ্রম এলাকায় একটি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে।

সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ শাহীনুর ইসলাম বলেন, বারদীতে আশ্রম উপলক্ষে ব্যাপক নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। পুরো আশ্রম এলাকাকে সিসি ক্যামেরার আওতায় আনা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর পাশাপাশি সাদা পোশাকে নিরাপত্তা দেওয়া হবে। আশ্রম এলাকায় মেডিকেল টিম কাজ করবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here