নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: বাংলা ঋতুর পালা বদলে এখন হেমন্তকাল হলেও শীতের প্রভাব পরতে শুরু করেছে বেশ ভালোভাবেই। ইতিমধ্যেই শীত মোকাবেলার গরম কাপড় কেনার ধুম পড়েছে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন ফুতপাতের দোকান গুলোতে। শুক্রবার ছুটির দিন হওয়ায় এর পরিমান বেড়েছে কয়েকগুণ।
এ বছর ফুটপাতের দোকানে ছেয়ে গেছে নারায়ণগঞ্জ শহরের বিভিন্ন সড়ক। শীত শুরুর আগে থেকেই এবার নগরীতে লক্ষ্য করা যাচ্ছে বিভিন্ন স্থানে ভ্যানে, দোকান ঘরে গড়ে উঠেছে শীতের গরম কাপড়ের ব্যবসা । ফুটপাতে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত চলছে বেচাকেনা। শীতবস্ত্র কিনতে ফুটপাতের গড়ে উঠা কাপড়ের দোকানে ভীর জমাচ্ছে নিম্ন ও মধ্য আয়ের মানুষজন।

শীত নিবারনে অপেক্ষাকৃত কম আয়ের মানুষ সাধ্যমত কম মূল্যে শীতবস্ত্র কিনতে ছুটে চলেছে ফুটপাতের গরম কাপড়ের দোকানগুলোতে। এবারের শীতকে কেন্দ্র করে নারায়ণগঞ্জের ২নং রেল হেইট, চেম্বার রোড, কালীর বাজার, চাষাঢ়াসহ বিভিন্ন স্থানে ভ্রাম্যমান দোকানে ও ভ্যানে করে লোকসমগম এলাকায় শীতের গরম কাপড় বিক্রি হচ্ছে।

নগরীর বিভিন্ন দোকান ঘুরে দেখা যায়, শিশুসহ নানা বয়সের শীতের বিভিন্ন রকম পোশাক রয়েছে। এর মধ্যে গেঞ্জি, উলের পোশাক, কোর্ট, জ্যাকেটই বেশি। এছাড়া মহিলাদের জন্য নানা রকম পোশাক রয়েছে। এর মধ্যে শীত প্রধাণ দেশে ব্যবহৃত লং কোর্ট, উলের কোর্ট, শর্ট কোর্ট, শর্ট জ্যাকেটই বেশি দেখা যাচ্ছে। তবে নারী-পুরুষ সবার জন্যই চামড়ার জ্যাকেট ও কোর্ট পাওয়া যাচ্ছে। আর এসব গরম কাপড় কিনতে আসছে নানা পেশা ও নানা বয়সের মানুষ।

ক্রেতা আজিজুল ইসলাম নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, ‘প্রতি বছরই নারায়ণগঞ্জে এমন দোকান বসে কিন্তু এবার একটু দোকান ও ভ্যান ব্যবসায়ীদের সংখ্যা বেশী হয়েছে। গতবার রাজশাহীতে ফুটপাতে গরম কাপড় বিক্রি করতে দেখা গেলেও জুতা বিক্রি করতে দেখা যেত না তেমন। এবার জুতাসহ শীতের বিভিন্ন কাপড় ভ্রাম্যমান দোকানে অনেক কম দামে বিক্রি হচ্ছে।’

ফুটপাতের আরেক ক্রেতা ইয়াসিন রানা নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, ‘শীত আসলে বাইক চালাতে আনেক সমস্যা হয়। আর এখানে আনেক ভাল মানের কম দামে ঠান্ডা নিবারনের জন্য গরম কাপড় পাওয়া যায়। তাই এখান থেকে জ্যাকেট কেনা হয়।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here