নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: ডেভিটের গাড়ীতে অবস্থানের প্রমাণ দিতে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ আলহাজ¦ শামীম ওসমানের প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়েছেন মহানগর যুব মহিলালীগের প্রথম কমিটির আহবায়ক নুরুন্নাহার সন্ধ্যা। পাশাপাশি প্রমাণে ব্যর্থ হলে তাকে আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে নারায়ণগঞ্জবাসীর কাছে নি:শর্ত ক্ষমা চাওয়ার আল্টিমেটামও দেন তিনি।
সোমবার (২১ আগষ্ট) বিকেলে শহরের ২নং রেলগেটস্থ দলীয় কার্যালয়ে মহানগর যুব মহিলালীগের আয়োজনে ২১ শে আগষ্ট ভয়াবহ গ্রেনেড হামলায় শহীদদের স্মরণে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে এই আল্টিমেটাম দেন তিনি।

সন্ধ্যা বলেন, ‘ডেভিডের গাড়ীতে সেদিন কে ছিল সেটা শামীম ওসমান, খোকন সাহা, এড. আনিসুর রহমান দিপু ভাল করেই জানেন। কারন তারা সেই রাতে গাড়ীতে থাকা সেই মেয়েটিকে দেখতে ঢাকা জিগাতলা থানায় গিয়েছিলেন।’

শামীম ওসমানের প্রতি প্রশ্ন ছুঁড়ে তিনি আরো বলেন, ‘ আমি তো ডেভিডের গাড়ীতে ছিলাম না। তাহলে শামীম ভাই কেন আপনে আমার চরিত্র হনন করলেন? আপনার জন্য আমি এখন রাস্তায় বের হতে লজ্জা পাই। কি দোষ ছিল আমার। আমি বলবো আমি ডেভিডের গাড়ীতে নয়, শামীম ওসমানের গাড়ীতে ছিলাম।’

সন্ধ্যা হুঁশিয়ারী উচ্চারন করেন বলেন, ‘র‌্যাবের ক্রসফায়ারে নিহত হওয়ার সময় নারায়ণগঞ্জের যুবদল ক্যাডার মমিনউল্লাহ ডেভিডের গাড়ীতে আমার অবস্থানের প্রমাণ শামীম ওসমানকে আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে দিতে হবে। অন্যথায় আমার চরিত্র হননের জন্য তাকে নারায়ণগঞ্জবাসীর কাছে নি:শর্ত ক্ষমা চাইতে হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘শামীম ভাই, কেউ আপনার বিরুদ্ধে কথা বললেই সে রাজাকার পুত্র কিংবা বিএনপি জামায়াতের লোক হয়ে যায়। কিন্তু আমি বলতে চাই, আপনিই বিএনপি জামায়াতের লেকদের নিয়ে চলাফেরা করেন। বন্দর উপজেলায় বিএনপির জনপ্রতিনিধি ও মুছাপুর ইউনিয়ননে রাজাকারের নাতিকে আপনিই জনপ্রতিনিধি বানিয়েছেন।’

তবে অবশ্য শামীম ওসমানকে ধন্যবাদও জানিয়েছেন সন্ধ্যা। কারন হিসেবে তিনি বলেন, ‘শামীম ভাইয়ের জন্য আমার জীবন ধন্য। কেননা, ছোট একজন কর্মী হওয়ার কারনে এত বছরের রাজনৈতিক জীবনে আমাকে তেমন কেউ চিনতেন না। কিন্তু এখন শামীম ওসমান আমার চরিত্র হনন করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরসহ শীর্ষ পর্যায়ের অনেক নেতারা আমাকে চিনতে পেরেছেন।’

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, মহানগর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এড. মাহমুদা মালা।

উল্লেখ্য, মাস দেড়েক পূর্বে মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকের সুপারিশের ভিত্তিতে নুরুন্নাহার সন্ধ্যাকে আহবায়ক করে নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুব মহিলা লীগের নতুন কমিটির অনুমোদন দেয় কেন্দ্রীয় কমিটি।

এরপর নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ শামীম ওসমানের সুপারিশে কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নাজমা আক্তার ও সাধারন সম্পাদক অপু উকিল নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের নারী সদস্য সাদিয়া আফরিনকে আহবায়ক ও শারমিন আক্তার মেঘলা, আসমা আক্তারকে যুগ্ম আহবায়ক করে জেলা যুব মহিলালীগ এবং এড. স্ইুটি ইয়াসমিনকে আহবায়ক ও মুনিরা সুলতানাকে যুগ্ম আহবায়ক করে মহানগর যুব মহিলালীগের আরেকটি কমিটি অনুমোদন দেয়ার পরই নারায়ণগঞ্জে ক্ষমতাসীন দলের রাজনীতিতে নতুন করে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়।

সম্প্রতি একটি সভায় শামীম ওসমান দাবী করেন, বিগত জোট সরকারের আমলে র‌্যাবের ক্রসফায়ারে ডেভিড নিহত হওয়ার সময় তার গাড়ীতে থাকা মেয়েটি ছিল বন্দরের বাসিন্দা নুরুন্নাহার সন্ধ্যা। আর এই ধরনের মেয়েকে যুব মহিলালীগের আহবায়ক করায় ভাল মেয়েদের নিয়ে তিনি পাল্টা কমিটি গঠনের সুপারিশ করেছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here