নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা: সেলিনা হায়াত আইভী অভিযোগ করেছেন, ‘শামীম ওসমানের নির্দেশেই তার ক্যাডার বাহিনী আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে সশস্ত্র হামলা চালিয়েছে। আমার নিরস্ত্র নিরীহ কর্মীদের উপর বৃষ্টির মত ইট-পাটকেল ও গুলি বর্ষণ করেছে। এতে সাংবাদিকসহ আমার অর্ধ শতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।
মঙ্গলবার (১৬ জানুয়ারী) বিকেলে ফুটপাতের হকার ইস্যুতে চাষাড়ায় সংঘর্ষের পর সন্ধ্যায় নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবে তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়ায় তিনি এই অভিযোগ করেন।

আইভী বলেন, ‘আমি শান্তিপূর্ণ ভাবে বিকাল ৪ টায় নগর ভবন থেকে বেরিয়ে ফুটপাট দিয়ে হেঁটে চাষাড়ায় যাচ্ছিলাম। শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কের চাষাড়া সায়েম প্লাাজার সামনে আসা মাত্র শামীম ওসমানের ক্যাডার নিয়াজুল পিস্তল উঁচিয়ে গুলি করে। শুরু হয় বিপরীত স্থান থেকে ইটপাটকেল নিক্ষেপ। এসময় আমার নেতাকর্মীরা মার খেয়ে আহত হয়ে এক ঘন্টার মত আমাকে নিরাপত্তা বলয় তৈরী করে ঘিরে রাখলেও পুলিশ সম্পূর্ণ নীরব ভূমিকা পালন করেছে। তাহলে পুলিশ প্রশাসন কি চেয়েছে। আমাকে হত্যা করা হোক। তারপর আমার লাশ পৌছে দিবে?’

তিনি আরো বলেন, ‘আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রীকে বিষয়টি জানাবো। কেন আমার নিরীহ নিরস্ত্র মানুষের এভাবে হামলা চালানো হলো। গুলি করা হল। আহত করা হল অর্ধশতাধিক নেতাকর্মীকে। শান্তি প্রিয় নারায়ণগঞ্জকে অশান্ত করে তুলেছে শামীম ওসমান। কেন? আমি তো চুপ ছিলাম। কোন কথা বলিনি। হকারদের মার্কেট করে দিয়েছি। বিকল্প পথ দেখিয়েছি। প্রয়োজনে হকার্স মার্কেট ভেঙ্গে বহুতল ভবন করে সেখানে হাকার পুর্নবাসন করা হবে। কিন্তু শামীম ওসমান কোন রাজনীতি শুরু করেছে। সে রাইফেল ক্লাবে বসে আমার উপর হামলা করার নির্দেশ দিয়েছে। আজমেরী ওসমান শহরের মহড়া দিয়েছে। তারা ত্বকীকে হত্যা করেছে, চঞ্চলকে হত্যা করেছে, আশিককে হত্যা করেছে। প্রতি বছর মানুষ খুন না করলে তারা শান্তি পায় না। এইসব করে আমাকে দমিয়ে রাখা যাবে না। যত হামলাই হোক পিছ পা হবো না।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here