নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের আওয়ামীলীগের সাংসদ শামীম ওসমানের অভিযোগ উত্থাপনের একদিন পর নগরীর মীর জুমলা সড়কে হকার মুক্ত করণে এবার উচ্ছেদ অভিযান চালিয়েছে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন।
রবিবার (৩১ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ৮ টায় সদর মডেল থানার পরিদর্শক (অপারেশন) জয়নাল আবেদীন ও টানবাজার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (পরিদর্শক) আজহারুল ইসলামের উপস্থিতিতে নাসিকের পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা আলমগীর হিরনের নেতৃত্বে এই উচ্ছেদ অবিযান পরিচালিত হয়।

বছরের পর বছর ধরে ময়লা আবর্জনার স্তুূপ আর ভাসমান কাঁচামাল, মাছ বিক্রেতাদের দখলে থাকা এই সড়কটির দৃশ্যপট এদিন দুপুরে একেবারেই পাল্টে যায়। সড়কের একমাথায় দাঁড়ালে শেষাংশ দেখা গেছে।

এরআগে, গত ২৫ ডিসেম্বর থেকে নগরীর ফুটপাতে উচ্ছেদের শিকার হওয়া হকাররা উচ্ছেদের পূর্বে পুনর্বাসনের সহযোগিতা চাইতে গত ২৯ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জ রাইফেলস্ ক্লাবে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ শামীম ওসমানের দ্বারস্থ হন।

সেদিন শামীম ওসমান মীর জুমলা সড়ক হকার মুক্ত না হওয়ায় সমালোচনা করে বলেছিলেন, ‘ওই সড়কে চকি বসাইলে কে কতো টাকা নেয়, কারা নেয় সবটাই জানি। ওই দিগুবাবু বাজারের মীর জুমলা রোডে সকালের চকি ৮শ’ টাকা আর রাতের চকি ১ হাজার টাকা। কিন্তু ওই যে এতো বড় রাস্তা মীর জুমলা রোড, ওই রোড থেকে তো কেউ হকার তাড়ায় না। ছোট একটা চকি দৈনিক ১৮শ’ টাকা চাঁদা দেয়। তেমনি নগরীর ফুটপাতের হকাররাও তো টাকা দিয়েই ব্যবসা করে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here