নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনে আওয়ামীলীগের হেভীওয়েট সাংসদ একেএম শামীম ওসমানকে মোকাবেলায় বিএনপি’র একক প্রার্থী মো: শাহ আলমের প্রথম চাওয়া হচ্ছে সাবেক এমপি মো: গিয়াস উদ্দিনের সহযোগিতা।
দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে গিয়াস উদ্দিন যেভাবে বিদ্রোহী হয়ে উঠেছেন, তাতে করে আগামী নির্বাচনের আগে গিয়াস বলয়ের সাথে সমঝোতায় পৌঁছাতে না পারলে শাহ আলমের ভরাডুবির শংকা করছেন অনেকেই।

সূত্রে প্রকাশ, এবারের নির্বাচনে অংশ নেওয়ার মাধ্যমে দলীয় চেয়ারপার্সণ বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার আন্দোলন চুড়ান্ত রূপ দেওয়ার চেষ্টা করছে বিএনপি। নির্বাচনে জয়ের মাধ্যমেই খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার কৌশল নিয়েছে তারা। আর এ জন্য দল মনোনীত প্রার্থীর পক্ষে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে কেন্দ্রীয় বিএনপি থেকে। সে অনুযায়ী দেশব্যাপী দলীয় প্রার্থী মনোনয়ন দিয়েছে দলটি এবং এসব প্রার্থীর বিপক্ষে কাউকে বিদ্রোহী প্রার্থী না হওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনে বিএনপি দলীয় মনোনয়ন দিয়েছে জেলা বিএনপি’র সিনিয়র সহ সভাপতি মো: শাহ আলম ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহমুদকে। দুইজনকে মনোনয়ন দেয়া হলেও মনোনয়ন পত্র যাচাই বাছাইয়ে বাদ পরেন অধ্যাপক মামুন মাহমুদ। ফলে এ আসনে বিএনপি’র একক প্রার্থী হয়ে যান শাহ আলম।

এদিকে এ আসনে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন সাবেক সাংসদ মো: গিয়াস উদ্দিন। কিন্তু বিগত সময়ে দলের আন্দোলন সংগ্রামে সক্রিয় অংশগ্রহন না থাকায় তাকে বিচেনায় রাখেনি বিএনপি। আর তাই এ আসনে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন গিয়াস উদ্দিন। এমনকি তার ছেলে জি এম কায়সারও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে এ আসনে মনোনয়ন জমা দেন।

কিন্তু ঋণ খেলাপী হওয়ায় গিয়াস উদ্দিন এবং ভূয়া ভোটার তালিকা দেওয়ায় তার পুত্র কায়সারের মনোনয়ন বাতিল করে নির্বাচন কমিশন। এর ফলে এ আসনে বিএনপি’র প্রার্থী মো: শাহ আলমের পক্ষে মো: গিয়াস উদ্দিনের ঐক্যবদ্ধ লড়াইয়ের অপেক্ষা করছে নেতাকর্মীরা।

কারন এই অঞ্চলে দুই হেভীওয়েট বিএনপি নেতার ঐক্য ছাড়া একেএম শামীম ওসমানের মতো প্রার্থীর বিপক্ষে জয়ের আশা করাটাও বোকামী বলে মনে করেন সকলে। তাই যে কোন ভাবেই হোক শাহ আলমের এখন সবচেয়ে বেশী প্রয়োজন গিয়াস উদ্দিনের সহযোগিতা। কারন ভোটের মাঠে গিয়াস উদ্দিনের এখনও জনপ্রিয়তা থাকায় শাহ আলমের জন্য গিয়াসের সহযোগিতা অপরিহার্য। বিশেষ করে সিদ্ধরগঞ্জের ভোট ব্যাংক দখলে নিতে মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিনের সহযোগিতার কোন বিকল্প নেই শিল্পপতি শাহ আলমের জন্য বলে অভিমত তৃণমূলের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here