নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নিজের নাম একেএম ফজলে রাব্বী থেকে রাব্বী মিয়া হয়ে যাওয়ার গল্প শুনিয়েছেন নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক।
বিবি মরিয়ম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের জিপিএ-৫ প্রাপ্ত এসএসসি পরীক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও নব নির্বাচিত ম্যানেজিং কমিটির পরিচিতি সভায় প্রধাণ অতিথির বক্তবে প্রদানকালে এ গল্প করেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (১৬ নভেম্বর) সকালে স্কুল মিলনায়তনে এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

নামের বিবর্তনের বিষয়ে নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া বলেন, ‘আমার নাম স্কুলের খাতায় ছিলো একেএম ফজলে রাব্বী। এসএসসি পরীক্ষার ফরম ফিলাপের সময় আমার নাম মোহাম্মদ রাব্বী মিয়া করে দেন স্কুলের শিক্ষক। তখন নাম পরিবর্তণ করা অনেক কঠিন কাজ ছিলো। আমি ব্রাহ্মনবাড়িয়ার ছাত্র হওয়ায় নাম পরিবর্তন করতে আমাকে কুমিল্লা বোর্ডে যেতে হতো। তাই আর নাম পরিবর্তণ করা হয়নি। ফলে আমার নামের একটা বড় অংশ হারিয়ে যায় তখন কিন্তু আমি হারিয়ে যাইনি। এসএসসি পরীক্ষায় আমি স্কুলের সকল শিক্ষার্থীদের মাঝে প্রথম স্থান অর্জণ করি। এরপর আমি ইন্টারমিডিয়েট পড়ার জন্য ভর্তি হই কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজে। সেখানে ইন্টারমিডিয়েট ফরম ফিলাপের সময় মোহাম্মদ রাব্বী মিয়া থেকে আমার নাম হয়ে যায় রাব্বী মিয়া, নাম থেকে হারিয়ে যায় মোহাম্মদ শব্দটি। কিন্তু নামে কি আসে যায়, ইন্টারমিডিয়েট পরীক্ষায়ও আমি ফার্ষ্ট ক্লাস ফার্ষ্ট হই। এরপর থেকে কোন পরীক্ষায় আমি দ্বিতীয় হইনি। আর এভাবেই আমি একেএম ফজলে রাব্বী থেকে রাব্বী মিয়া হয়ে গেলাম।’

স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো: জসিমউদ্দিনের সভাপতিত্বে এবং প্রধাণ শিক্ষক সফিউল আলম খানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশেষ বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির শিক্ষানুরাগী সদস্য এম এ রাসেল। উপস্থিত ছিলেন ম্যানেজিং কমিটির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য খালিকুজ্জামান ভূইয়া, অভিভাবক সদস্য ডা: আশরাফুদ্দিনসহ স্কুলের শিক্ষক, শিক্ষিকা, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here