নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি, সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জে আলোচিত শিশু রোকসানা হত্যাকারী ফাঁসির দাবিতে উত্তাল হয়ে উঠছে সিদ্ধিরগঞ্জ।
মঙ্গলবার (৩০ জানুয়ারী) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত বিভিন্ন বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক-শিক্ষিকা, অভিভাবক, জনপ্রতিনিধি ও এলাকাবাসী মানববন্ধন, বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে।

এসময় নারায়ণগঞ্জ-আদমজী সড়কে ২নং বাস স্ট্যান্ডে এলাকায় রাস্তার তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। ভোগান্তিতে পরে যাত্রীরা।

এসময় কাউন্সিলর ইফতেখার আলম খোকন বলেন, এ জঘন্য ঘৃণাত্বক কাজ করায় আসামী সোহাগের প্রকাশ্যে ফাসির দাবি জানাচ্ছি। তিনি আরো বলেন, আমি পুলিশকে বলেছিলাম শিশু ধর্ষণকারী আসামীকে যেন ক্রসফায়ার দেওয়া হোক। যা দেখে সমাজের এই ঘৃণাত্বক কাজ কেউ না করে।


আভিভাবক সদস্য কাজী নাজমুল ইসলাম বাবুল বলেন, কষ্ট লাগছে সন্তানের বিচারের দাবিতে রাস্তায় দাঁড়াতে। অপরাধীরা এতই নিকৃষ্ট শিশুটিকে ধর্ষণ করে নির্মমভাবে হত্যা করেছে। প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ রইল এ আসামীকে যেন ফাসি দেওয়া হয়।
নিহত রোকসানার বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আল আমিন হোসেন বলেন, আজ যে সন্তানের স্কুলে যাওয়ার কথা, সে সন্তানের হত্যাকরীর বিচারের দাবিতে রাস্তায় দাড়িয়েছি। হত্যাকারীর এমন বিচার দাবি করছি যা দেখে পৃথিবীতে এমন জঘণ্য ঘটনা আর কেউ না ঘটায়।

এসময় আলো উপস্থিত ছিলেন, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর মনোয়ারা বেগম, চিত্তরঞ্জণ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনির সংকর হাওলাদার, বীর মুক্তিযোদ্ধা এহসান কবির রমজান, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মতিন, সমাজ সেবক জাহাঙ্গীর হোসেন স্বাধীন, নজরুল ইসলাম, হামিম সহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

উল্লেখ্য, সিদ্ধিরগঞ্জ গোদনাইল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর শিক্ষার্থী রোকসানাকে ২৩ জানুয়ারী বিদ্যালয়ে যাওয়ার পথে অপহরণ করা হয়। পরে ২৬ জানুয়ারী সোনারগায়ে কাইকারটেক ব্রিজের ঢালে রাস্তার পাশ থেকে হাত-পা ও মুখে কষ্টেপ পেচানো বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করে সোনারগা থানা পুলিশ। এঘটনায় ২৭ জানুয়ারি নিহত স্কুল ছাত্রী রোকসানার বাবা আশরাফুল ইসলাম বাদী হয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। যার নং-৫৩। ২৯ জানুয়ারী পুলিশ রোকসানাকে অপহরণ, ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনায় জড়িত আসামী রায়হান কবির সোহাগকে বন্দর থেকে গ্রেফতার করে। সে ১৬৪ ধারায় আদালতে হত্যাকান্ডের কথা স্বীকার করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here