নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: মহান মে দিবস উপলক্ষে ১৮নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোঃ কবির হোসাইন এলাকার সর্বস্তরের শ্রমিকদের সাথে নিয়ে একটি গণমিছিল বের করেন।
সোমবার (১ মে) বিকাল ৫টায় বি.কে রোড শীতলক্ষ্যা থেকে বের হওয়া গণমিছিলটি ওয়ার্ডের এলাকা প্রদক্ষিণ করে তার নিজস্ব কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়।

মিছিল শেষে মহান মে দিবস সম্পর্কে এক সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে ১৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ কবির হোসাইন বলেন, মালিক এবং শ্রমিকদের সমন্বয়েই গড়ে উঠতে পারে ভাল একটি সম্পর্ক। শ্রমিকের মর্যাদা দেওয়া প্রতিটি মালিকের দায়িত্ব এবং কর্তব্য। শ্রমিকদের ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত করা কখনো কোন মালিকের উচিত নয়।

এর আগে মিছিলে অংশগ্রহন করা জনতার মুখে উচ্চারিত হতে থাকে ‘মাদকের আস্তানা শীতলক্ষ্যায় রাখবো না’। সন্ত্রাসী, মাদক ব্যবসায়ীদের কালো হাত ভেঙ্গে দাও গুঁড়িয়ে দাও।

নাসিক ১৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কবির হোসাইন এ সময় অভিযোগ করে আরো বলেন, কিছুদিন পূর্বে স্থানীয় কয়েকটি পত্রিকায় লেখা হয়েছে আমি নাকি মাদক ব্যবসায়ীদের লালন পালন করি।

আমি একজন জনপ্রতিনিধি হিসেবে আমার কাছে এলাকার মানুষ বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে আসতে পারে অথবা কোন অনুষ্ঠানে কারো সাথে আমার ছবি থাকতেও পারে। তাই বলে আমি মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে চলাফেরা করি এটা কেমন কথা? ডিএসবি এবং গোয়েন্দা সংস্থার দেয়া তথ্য অনুযায়ী এলাকার কে মাদক ব্যবসা করেন তা আপনারা খোঁজ নিলেই আরো ভাল করে জানতে পারবেন। আমার একটাই কথা, অত্র এলাকায় যদি আমার ছেলে এবং আমার ছোট ভাই মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত থাকে আর এ জন্য গ্রেফতার হয় তাহলে আমি নিজে তাদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলায় সহযোগিতা করবো।আমার জীবনের বিনিময়ে হলেও আমি এলাকা থেকে মাদক নির্মূল করব। আমার এলাকায় কোন সন্ত্রাসী আর মাদক ব্যবসায়ী স্থান হবেনা।

প্রসঙ্গত, গোয়েন্দা সংস্থার তথ্যানুযায়ী নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১৮ নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর কামরুল হাসান মুন্নার মাদক ব্যবসার চাঞ্চল্যকর তথ্য গণমাধ্যমে প্রকাশ পায়। যিনি এ্যাম্বুলেন্সে করে নারায়ণগঞ্জে মাদক ঢুকাতেন। আর এখন তিনিই মাদক বিরোধী বিভিন্ন বক্তব্য রাখছেন। যা শুনে সাধারন মানুষের মুখে রব উঠে যেন ভূতের মুখে রাম নাম জপ হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here