নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: শ্রমিকদের অর্থনৈতিক মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে সম্বোধন করেছেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মো: রাব্বী মিয়া।
তিনি বলেছেন, ‘মুক্তিযোদ্ধারা ৯ মাস যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছে আর শ্রমিকরা প্রতিনিয়ত পরিশ্রম করে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। তাই শ্রমিকরা হচ্ছেন দেশের অর্থনৈতিক মুক্তিযোদ্ধা।’

মঙ্গলবার (১ মে) মহান মে দিবস ও আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবস উপলক্ষ্যে নগরীর চাষাড়াস্থ কেন্দ্রীয় সিটি শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসন ও বিভাগীয় শ্রম অধিদপ্তর আয়োজিত আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

জেলা প্রশাসক শ্রমিকদের উদ্দেশ্যে আরো বলেন, ‘আমরা শুধুমাত্র সরকারী চাকুরী করতে নারায়ণগঞ্জে আসিনি। এই জেলার সকল মানুষের সার্বিক উন্নয়নের জন্যে এখানে এসেছি। তাই অনুগ্রহ করে ভাংচুর রাস্তা অবরোধ করে মানুষকে কষ্ট দিবেন না। কারন এই দেশ আপনাদের আর এর সৌন্দর্য্য নষ্ট করলে আপনারই বদনাম হবে। টাকা পয়সা থাকা আর সুখ এক জিনিস নয়। আপনাদের যেকোন দাবী আমাকে জানাবেন। আলোচনার মাধ্যমে আপনাদের সেই সমস্যা সমাধান করতে সচেষ্ট থাকব।’

তিনি শ্রমিকদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘আপনারা আপনাদের সন্তানকে সৎ মানুষে পরিনত করুন। মাদক, জঙ্গিবাদ থেকে তাদের দূরে রাখুন। এতে করে আপনাদের ঘরে যেমন শান্তি আসবে তেমনি সমাজে আইনশৃঙ্খলা ভালো থাকবে।’

বিভাগীয় শ্রম অধিদপ্তরের পরিচালক মোহাম্মদ আমিনুল হকের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইলতুৎমিশ, অতিরিক্ত জেলা পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোস্তাফিজুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রেজাউল বারী, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হোসনে আরা বীণা, বিকেএমইএ’র সহ-সভাপতি (অর্থ) হুমায়ুন কবির খাঁন শিল্পী।

শ্রমিক প্রতিনিধি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় শ্রমিক লীগ কেন্দ্রীয় শ্রম কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক আলহাজ¦ কাউসার আহমেদ পলাশ, জাতীয় শ্রমিক লীগ জেলার সাধারণ সম্পাদক মাঈন উদ্দিন বাবুল, জেলা মহিলা শ্রমিক লীগ নেত্রী সুমাইয়া বেগম সুমি, মহানগর শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসানা মুন্না।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে আলহাজ¦ কাউসার আহম্মেদ পলাশ বলেন, ‘জননেত্রী শেখ হাসিনার আমলে শ্রমিকদের সকল দাবী পূরণ হয়েছে। তারপরেও আমরা আন্দোলন করি, সংগ্রাম করি৷ কিন্তু আমাদের সতর্ক থাকতে হবে যেন আমাদের নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলনে যেন মালিক পক্ষের কোন দালাল ঢুকতে না পারে। এভাবেই মালিকরা সুযোগ নেয়। তাই আমরা তাঁদের ফাঁদে পা দিব না। কোন প্রকার জ্বালাও, পোড়াও করবো না। শেখ হাসিনার সরকার শ্রমিকদের স্বার্থে যে আইন করেছেন, সে আইন মেনেই আমরা নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলন করবো।’

ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইলতুৎমিশ বলেন, ‘ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশ সবসময় মালিক-শ্রমিকদের মধ্যে সেতুবন্ধন তৈরীর কাজ করে যাচ্ছে। শ্রমিকরা আছে বলেই দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। তারাই হচ্ছে দেশ গড়ার প্রকৃত কারিগর।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here