নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান বলেছেন, ‘এই রাষ্ট্র সবসময় জনগণ দ্বারা পরিচালিত হয় না। ষড়যন্ত্রকারীরা মাঠে নেমে গেছে। সামনে আরেকটা যুদ্ধ রয়ে গেছে। এই যুদ্ধটা সবচেয়ে কঠিন যুদ্ধ। এই যুদ্ধে আমরা জয় লাভ করলে টিকে যাবো। কিন্তু যদি এই যুদ্ধে পরাজিত হই তাহলে সামনে আমাদের কঠিন সময় পারি দিতে হবে।’
বৃহস্পতিবার (৮ মার্চ) দুপুরে কেন্দ্রীয় লঞ্চ টার্মিনালের পাশে নারায়ণগঞ্জ জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমপ্লেক্সের নবনির্মিত ভবন উদ্বোধন উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এই শংকার কথা বলেন।

শামীম ওসমান আক্ষেপ করে বলেন, ‘আমি দেখেছি নারায়ণগঞ্জের অনেকেই মুক্তিযোদ্ধা না। কিন্তু মুক্তিযুদ্ধের দ্বারা বেনিফিটেড। হইতে পারে তারা আওয়ামীলীগের নেতা। কেউ হয়তো বাস চালিয়েছেন, ট্রাক চালিয়েছেন। কিন্তু ৭১’র পরে দেখলাম অনেকেই গাড়ী বাড়ীর মালিক হয়ে গেছেন। একেক জনের ১০ট/১২টা বাড়ী রয়েছে। কিন্তু কই, আমার বাবা ভাইয়েরাও তো যুদ্ধ করেছিল। আমাদের তো হয় নাই। তাহলে আপনাদের হলো কেমন করে।’

তিনি আরো বলেন, ‘চেনা বামনের পৈতা লাগে না। আমাদের কাছে পৈতার দরকার নাই। কিন্তু শেখ হাসিনার এই দেশে পৈতার খুব দরকার। বিশেষকরে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য দরকার। আগামী ২৫ বছর পরে মুক্তিযোদ্ধারা না থাকলেও যাতে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান করে, সেই ব্যবস্থার জন্যই মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তি দরকার।’

এ সময় শামীম ওসমান গর্ববোধ করে বলেন, ‘আমি গর্বের সাথে বলতে চাই, আমি সেই মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, যিনি বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর ঘোষণা দিয়েছিলেন, বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে। রেডিও বাংলাদেশ টেলিভিশনে পতাকা উত্তোলন করেছিলেন। কিন্তু একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে আমার তখনই কষ্ট লাগে, যখন সেই পরিবারকে তুলে কেউ বিদ্রুপ মন্তব্য করেন। তবে কেউ আমাকে নিয়ে কথা বললে আমার কষ্ট হয় না। কিন্তু পরিবারকে নিয়ে কথা বললে কষ্ট লাগে।’

নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম মোজাম্মেল হক।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ-৫ (সদর-বন্দর) আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ¦ একেএম সেলিম ওসমান, নারায়ণগঞ্জ-২ (আড়াইহাজার) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ¦ নজরুল ইসলাম বাবু, সংরক্ষিত মহিলা আসনের নারী সংসদ সদস্য এড. হোসনে আরা বাবলী, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ নারায়ণগঞ্জ জেলা কমান্ডের সাবেক কমান্ড বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই, সাধারণ সম্পাদক এড. আবু হাসনাত মো: শহীদ বাদল, মহানগর আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি চন্দন শীল প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here