নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: প্রাণের স্পন্দনে, প্রকৃতির বন্ধনে এই শ্লোগানকে সামনে রেখে সারা বিশ্বের সাথে একযোগে যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হচ্ছে বিশ্ব পরিবেশ দিবস-২০১৭। জাতীয় কর্মসূচীর সাথে সমন্বয় রেখে নারায়ণগঞ্জ জেলায়ও পালিত হলো দিসবটি।
সোমবার (৫ জুন) সকাল সাড়ে ১০টায় পরিবেশ অধিদপ্তরের উদ্যোগে ও জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে দিবসটি উপলক্ষে আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরন অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক বলেন, ‘আমরা বিভিন্ন সভা, সমাবেশ ও সেমিনারে পরিবেশ বিষয়ে আলোচনা করি। পরিবেশ হল জনসচেতনতা। আপনি আমি সচেতন থাকলে পরিবেশ ভাল থাকবে।’

নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটির সভাপতি এড. এবি সিদ্দিক এর বর্জ্য পরিস্কার পরিচ্ছন্ন বিষয়ে একটি প্রশ্নের জবাবে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডে ময়লা ফেলা প্রসঙ্গে জেলা প্রশাসক আরো বলেন, ’আমরা মোবাইল কোর্ট করে ময়লা ফেলা বন্ধ করি পরে দেখা যায় শহরের ভেতরে ময়লার স্তূপ হয়ে পড়ে থাকে। আমাদের মধ্যে সমন্বয় থাকতে হবে। আমরা যারা আইন প্রয়োগ করি তারা ভালভাবে চিন্তাভাবনা করেই করে থাকি। আমরা ইচ্ছা করলেই যেখানে সেখানে ডাম্পিং স্পট বানাতে পারি না।’

জেলা প্রশাসক বলেন, ‘সরকার বর্জ্য থেকে সৌর বিদ্যুতের ব্যবহার তৈরী করার প্রকল্পের বিষয়ে চিন্তা ভাবনা করছেন। আমাদের বর্জ্য থেকে বিদ্যুতে যেতে হবে। ঢাকা ওয়াসা থেকে কয়েক কোটি টাকা বাজেট করা হয়েছে নদী গুলোকে দূষনমুক্ত করার জন্য। আমারা দেখে যেতে না পারলেও আমাদের আগামী প্রজন্ম দেখে যেতে পারবে শীতলক্ষা-বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে আধুনিক ওয়াকওয়ে হয়েছে। এজন্য সকলকে মিলে দেশকে ভালবাসতে হবে।’


ডিসি আরো বলেন, ‘আমরা যত্রতত্র পলিথিন গুলো ফেলছি যেটা বিশ্বের কোন দেশে নেই। আমরা ব্যবসায়ীদের নিয়ে পরিবেশ বিষয়ে একটি আলোচনা অনুষ্ঠানের চিন্তা করছি রোজার পর। আমাদের সকলকে নিজেদের সম্পর্কে আরো সচেতন হতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘আগামী ১০ বছরের মধ্যে বাংলাদেশে আরো বেশী উন্নয়নের ফাউন্ডেশন তৈরী হবে। অন্য রকম একটি বাংলাদেশ আপনারা দেখতে পাবেন।’

কল কারখানায় ইটিপি প্ল্যান্ট চালু প্রসঙ্গে তিনি বলেন, যাদের ইটিপি প্ল্যান্ট চালু  নেই তাদের বিরুদ্ধে আমরা মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করতে পারিনা। কারন আমাদের কিছু সীমাবদ্ধতা রয়েছে। আমাদেরকে সুনির্দিষ্ট তথ্য দিতে হবে কোথায় কোথায় নিষিদ্ধ পলিথিন কারখানা গুলো রয়েছে। মনে রাখবেন ডিসি আর এসপিরা আপনাদের তথ্য গোপন রাখেন, তথ্য কখনো ফাঁস করেন না। আমাদের নতুন প্রজন্মকে পরিবেশ সম্পর্কে আরো সচেতন করে গড়ে তুলতে হবে। তাই আগে নিজেদের ঘরের পরিবেশ তৈরী করতে হবে। আমরা ইটভাটা,কল-কারখানা, খাল-বিল আর নদীনালা নিয়ে পরিবেশ রক্ষায় কাজ করছি।’

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ ছারোয়ার হোসেন এর সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেব উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান।

বিশেষ আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর নারায়ণগঞ্জ এর উপ-পরিচালক আব্বাস উদ্দিন।

এ ছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন, পরিবেশ অধিদপ্তর নারায়ণগঞ্জ কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মুহাম্মদ মুজাহিদুল ইসলাম, পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলন নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি এবি সিদ্দিক, মোঃ নয়ন, তানজিলা হক সহ প্রমূখ।
অনুষ্ঠান শেষে চিত্রাংকন প্রতিযোতিায় অংশগ্রহন করা বিজয়ীদের মাঝে পুরুস্কার বিতরন করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here