নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: প্রতিশ্রুত অনুযায়ী জনসাধারনের চলাচলের সুবিদার্ধে পক্ষকালের মধ্যে ফেরী সার্ভিস চালুর ঘোষণার বাস্তবায়ন না করে সদর-বন্দরবাসীকে প্রকৃত পক্ষেই ‘ধোকা’ দিয়ে ‘বোকা’ বানিয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলে মন্তব্য করেছেন নারায়ণগঞ্জ-৫ (সদর-বন্দর) আসনে আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ‘ধানের শীষ’ প্রত্যাশী বিএনপির সম্ভাব্য এমপি পদপ্রার্থীরা।
একই সাথে জনগনের সমস্যা নিয়ে রাজনীতি না করার জন্য সরকারী দলের প্রতি আহবানও জানিয়েছেন তারা।

সেতুমন্ত্রীর পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী শীতলক্ষ্যা নদীতে ফেরী সার্ভিস চালু না হওয়ায় প্রেক্ষিতে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে ‘ধানের শীষ’ প্রত্যাশী নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি’র সিনিয়র সহ সভাপতি এড. সাখাওয়াত হোসেন খান নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, ‘সেতুমন্ত্রীর ঘোষণার পরপরই তা বাস্তবায়ন নিয়ে আমি সংশয় প্রকাশ করেছিলাম। কিন্তু যেহেতু ওবায়দুল কাদের আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক, প্রধাণমন্ত্রীর পরেই তার স্থান, আর খুব বড় গলায় বলেছিলেন যে তারা জনগণকে ধোকা দিয়ে বোকা বানান না। বরং যেটা পারবেন সেটাই প্রতিশ্রুতি দেন, সেহেতু আশা করেছিলাম তার ঘোষণা হয়তো বাস্তবায়ন হবে। অথচ দু:খজনক হলেও সত্যি, ওবায়দুল কাদেরের ঘোষনা মিথ্যা প্রমানিত হয়েছে। আর এই মিথ্যা আশ^াসে জনগন তা ধোকা হিসেবেই মনে করছে। তবে অতীতে এ আসনে অনেকে এমপি হয়েছে আর সদর-বন্দরবাসীকে এ ধরনের আশ^াস দিয়েছে কিন্তু কেউ তা বাস্তবায়ন করেনি। আমি মনে করি, জনগনের এ সমস্যাটি নিয়ে রাজনীতি না করে তা সমাধানের ব্যবস্থা করা উচিত, যাতে সদর-বন্দরের বিশাল জনগোষ্ঠি উপকৃত হয়।’

একই বিষয়ে এ আসনে বিএনপি’র অপর মনোনয়ন প্রত্যাশী নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবদলের আহবায়ক মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, ‘ওবায়দুল কাদের নারায়ণগঞ্জের মানুষকে ধোকা দিয়েছেন। ধোকার রাজনীতিই তাদের পুঁজি। ফেরী নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো ধোকা দেওয়া হলো সদর-বন্দরবাসীকে। এর আগে একবার ফেরী দিয়েও তা সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছিলো। এটা ইচ্ছাকৃতভাবেই করা হয়েছে। কারন বন্দরবাসী ফেরী চায়নি, তারা চেয়েছিলো সেতু। ’

আর এব্যাপারে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাবেক সাংসদ ও মহানগর বিএনপির সভাপতি এড. আবুল কালামের মন্তব্য জানতে যোগাযোগ করা হলে তিনি প্রথমে মুঠোফোন রিসিভ করে ব্যস্ত আছেন জানিয়ে ১০ মিনিটের মধ্যে এই প্রতিবেদককে ফোন করবেন বলে আশ^স্ত করলেও পরবর্তীতে তার ব্যবহৃত মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

উল্লেখ্য, গত ২৩ নভেম্বর নারায়ণগঞ্জ-৫ (সদর-বন্দর) আসনের জাতীয় পার্টির সাংসদ সেলিম ওসমানের অর্থায়নে বন্দরে নির্মিত তিনটি স্কুল উদ্বোধন করতে এসে সুধী সমাবেশে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছিলেন, ‘ আমি সেই কথা বলবো না, সেই ওয়াদা দেবনা যেটা রাখতে পারবো না। কারন এটাই শেখ হাসিনার অঙ্গীকার। জনগনকে ধোকা দিয়ে বোকা বানানোর কাজ আমরা করিনা। প্রথমত আমি খেয়ার স্থানে ফেরী সার্ভিস চালু করে দিচ্ছি। আমি মন্ত্রী হিসেবে বলে দিলাম আগামী ১৫ দিনের মধ্যে ফেরী চালু হবে। যা কথা দিয়েছি তা রাখবো।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here