নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জ-৫ (সদর-বন্দর) আসনে ক্ষমতাসীন দলের এমপি না থাকায় জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীদের দ্বারা আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা মারধরসহ লাঞ্ছনার শিকার হচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন, মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্য ও জেলা পরিষদের সদস্য জাহাঙ্গীর আলম।
শনিবার (১১ নভেম্বর) সকালে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ৪৫ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে শহরের ২নং রেলগেটস্থ আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে জেলা ও মহানগর যুবলীগ আয়োজিত এক আলোচনা সভা ও কেক কাটা অনুষ্ঠানে তিনি এই অভিযোগ করেন।

নারায়ণগঞ্জ শহর যুবলীগের সাধারন সম্পাদক আলী আহাম্মদ রেজা উজ্জলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ও নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ডা. সেলিনা হায়াত আইভী।

মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্য ও জেলা পরিষদের সদস্য জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জ ৫ আসনে আওয়ামী লীগের কোন এমপি নাই, বিধায় এখানে লাঙ্গলের নেতাকর্মীদের দ্বারা আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা লাঞ্ছিত। বন্দরে জাপার নেতারা আওয়ামী লীগের নেতাদের মারধর করে। তাই আগামী নির্বাচনে এই আসনসহ জেলার ৫টি আসনেই নৌকার প্রার্থী চাই।’

তিনি আরো বলেন, ‘ছাত্রজীবনে যখন তোলারাম কলেজে ছাত্র রাজনীতির সাথে সক্রিয় ছিলাম, তখন আমাকে পদ-পদবী থেকে বঞ্চিত করতে একটি মহল আমার প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে আমাকে পরাজিত করতে চেয়েছিল। তখন আমার নেতা আলী আহাম্মদ চুনকার মেয়ে আইভী আমার জন্য কাজ করেছেন। এরপর যখন না’গঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য নির্বাচনে আমি লড়াই করি, তখনও আমার বিপরীতে ৩জন প্রতিদ্বন্দ্বী লাগিয়ে দেয়া হয়। কিন্তু সেখানেও আইভী মূখ্য ভূমিকায় ছিলেন এবং আমি বিজয় লাভ করি। আগামীতে তার নেতৃত্বই সকল আন্দোলন সংগ্রামে সক্রিয় থাকবো।’

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, জেলা যুবলীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কাদির, আওয়ামীলীগ নেতা ও সাবেক কাউন্সিলর মনির হোসেন, শহর যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নিজাম আজাহার, জেলা যুবলীগের সদস্য তানভীর, ১৭নং ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা মামুন ভূঁঞা, যুব মহিলালীগ নেত্রী কল্পনা, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মোঃ কায়কোবাদ রুবেল প্রমুখ।

উল্লেখ্য, বর্তমানে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন জাতীয় পার্টির সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা একেএম সেলিম ওসমান। যিনি শুধুমাত্র উন্নয়ণের স্বার্থে রাজনীতির উর্ধ্বে উঠে আওয়ামীলীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টির জনপ্রতিনিধিসহ নেতৃবৃন্দদের সাথে নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। আর বন্দরে বসবাস করেন জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক ও জেলা পরিষদ সদস্য আবুল জাহের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here