নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: সরকার মুখে বলে স্বাধীনতার চেতনায় বিশ্বাসী, কিন্তু বাস্তবে এর কোন মিল খুঁজে পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ করেছেন মহানগর বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সাংসদ এড. আবুল কালাম।
মিয়ানমারে মুসলিম রোহিঙ্গাদের উপর হামলার প্রতিবাদে মহানগর বিএনপি আয়োজিত মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এই অভিযোগ করেন তিনি।

শুক্রবার (৮ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০ টায় কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে নারায়নগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

তিনি বলেন, ‘আমরা মুখে বলি স্বাধীনতার চেতনায় বিশ্বাস করি কিন্তু বাস্তবে এর কোন মিল খুঁজে পাচ্ছি না। মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের উপর বর্বরোচিত নিযার্তনের কোন প্রতিবাদ সরকারকে করতে দেখছি না।’

মহানগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এড. আবু আল ইউসুফ খান টিপুর সঞ্চালনায় মানববন্ধনে আরও বক্তব্য রাখেন, মহানগর বিএনপির সাধারন সম্পাদক এটিএম কামাল, সহ-সভাপতি এড. জাকির হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সবুর খান সেন্টু, বিএনপি নেতা ফারুক হোসেন, মহানগর ছাত্রদলের যুগ্ম-আহবায়ক আবুল কাউছার আশা, শ্রমিক দল নেতা আসলাম, এম এ আজগর, স্বেচ্ছা সেবক দল নেতা মাকিদ মোস্তাকিম শিপলু, দুলাল হোসেন সহ প্রমূখ।

তিনি আরও অভিযোগ করেন, ‘নির্যাতনের শিকার মুসলিম রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে প্রাণ বাঁচাতে এসেও না খেয়ে রোদ বৃষ্টিতে ভিজে দুবির্ষহ জীবন যাপন করছেন। অথচ আমাদের সরকার তাদের দিকে কোন সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিচ্ছেন না। আপনারা স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তি হিসেবে নিজেদের পরিচয় দিয়ে থাকেন। অথচ রোহিঙ্গা মুসলিমরা বাংলাদেশে এসে মানবেতর জীবন যাপন করছে, তাদের দিকে এখনো কোন সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেননি। আপনারা ভুলে গেছেন স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় বাংলাদেশের মানুষদের মিয়ানমারের মুসলমানরা তৎকালীন সময় আশ্রয়ের পাশাপাশি খাবার দিয়ে সহযোগিতা করেছিল।’

এড. আবুল কালাম আরও বলেন, ‘সরকারকে আহবান করছি সব কিছুই রাজনৈতিক দৃষ্টিতে না দেখে মানবতার দৃষ্টিতে দেখুন। মিয়ানমারে মুসলিম রোহিঙ্গাদের উপর সেই দেশের সরকারের হামলা বন্ধে উদ্যোগ গ্রহন করুন। সেই সাথে আহবান করবো যে সকল রোহিঙ্গারা প্রাণ বাঁচানোর জন্য আমাদের দেশে এসে আশ্রয় নিয়েছে তাদেরকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিন। সেই সাথে এই হত্যা যোগ্য কমর্কান্ড বন্ধের জন্য ব্যবস্থা গ্রহন করার পাশাপাশি বাংলাদেশে অনুপ্রবেশকারী রোহিঙ্গাদের নিরাপদে মিয়ানমারে পাঠানোর উদ্যোগ গ্রহন করুন।’

মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের উপর বর্বরোচিত হামলায় বিশ্ববাসী আজ হতবাক। মিয়ানমার সরকার তাদেরকে হত্যা করেও ক্ষ্যান্ত হয়নি, যে সকল রোহিঙ্গারা প্রাণ বাঁচানোর জন্য বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নিয়েছেন তারা যেন আর ফেরত যেতে না পারে সেজন্য মিয়ানমারের সীমান্ত এলাকায় ডিনামাইট বিছিয়ে রেখেছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান যখন ক্ষমতায় ছিলেন তখনও এই ধরনের হামলা শুরু করেছিলো মিয়ানমার সরকার। তখন শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বাংলাদেশের সীমান্ত এলাকায় সেনা বাহিনী মোতায়েন করেছিলেন। মিয়ানমার সরকার সেই ভয়ে রোহিঙ্গাদের উপর হামলা বন্ধ করে দিয়ে ছিলেন। তাই আমি সরকারের প্রতি আহবান করবো মানবতার দৃষ্টি থেকে হলেও রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়ান।’

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি ফখরুল ইসলাম মজনু, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আওলাদ হোসেন, মনিরুল ইসলাম সজল, কোষাধ্যক্ষ মনিরুজ্জামান মনির, বিএনপি নেতা অহিদুল ইসলাম ছক্কু, ফারুক হোসেন, মহানগর শ্রমিক দল নেতা মনির মল্লিক, স্বেচ্ছা সেবক দল নেতা ইমন, আবু আল বেলাল খান, রোমান, দুলাল, আব্দুর রশিদ হাওলাদার, মহানগর ছাত্রদল নেতা শফিকুল ইসলাম, দপর্ন প্রধান, আব্দুল হাসিব, সোহেল প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here