নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি, সোনারগাঁ প্রতিনিধি: সোনারগাঁয়ের জি আর ইনস্টিটিউশন স্কুল এন্ড কলেজের এসএসসি পরীক্ষার্থী আমেনার আত্মাহুতিতে প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষের কটুক্তিকেই দায়ি করেছে তার পরিবার, সহপাঠি ও স্থানীয়রা। অধ্যক্ষের বিচার চেয়ে মানববন্ধন করেছে পৌর ছাত্রলীগ, স্থানীয় এলাকাবাসী, পরিবারের সদস্য, স্বজন ও সহপাঠিরা। মঙ্গলবার সকালে জি আর ইনস্টিটিউশন স্কুল এন্ড কলেজের সামনে মানববন্ধনটি অনুষ্ঠিত হয়। পরে বিক্ষোভ মিছিল শেষে মানববন্ধন করে বিচার প্রার্থীরা।

‘জি আর স্কুল এন্ড কলেজের সকল ছাত্র-ছাত্রী বৃন্দ’ ব্যানারে দসোনারগাঁও জি আর ইনস্টিটিউশন স্কুল এন্ড কলেজের ১০ম শ্রেণীর ছাত্রী আমেনা আক্তারের অকাল মৃত্যুর পিছনে দুর্ণীতিবাজ অধ্যক্ষ সুলতান মিয়া তথা এই অকাল মৃত্যুর মুল হোতাদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি চাই।দ প্রশ্ন রেখে তিন বার লেখা রয়েছে কেন এই বৈষম্য?দ কথাটি। আরো লেখা রয়েছে, আমরা জানি প্রাতিষ্ঠানিক নিয়ম- ধনী ও গরিব সবার জন্য সমান, কিন্তু আজ এই বৈষম্যহীনতার জন্য দায়ি সুলতান মিয়া তথা স্কুল কর্তৃপক্ষ।

পৌর ছাত্রলীগ এর ব্যানারে লেখা রয়েছে, জিআর ইনস্টিটিউশন মডেল স্কুল এন্ড কলেজের ১০ম শ্রেণীর ছাত্রী আমেনা আক্তার এর অকাল মৃত্যুতে আমরা গভীর ভাবে শোকাহত।

এদিকে, মানববন্ধনে অংশ নেওয়া অনেকে দাবি করেন অকৃতকার্য হওয়া এবং ফরম পুরনের টাকা কমাতে অধ্যক্ষ সুলতান মিয়ার কাছে আমেনা ও তার পরিবার গেলে তাদের উদ্দেশ্য করে অধ্যক্ষ কটুক্তি করে। যদিও পরবর্তীতে অধ্যক্ষ সুলতান মিয়া তার কটুক্তির জন্য আমেনার পরিবারের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন বলে জানান তারা।

উল্লেখ্য, উপজেলার সোনারগাঁ জি আর ইনস্টিটিউশন স্কুল এন্ড কলেজে এসএসসি পরিক্ষার্থী আমেনা আক্তার মূল্যায়ন পরীক্ষায় চার বিষয়ে অকৃতকার্য হয়। অকৃতকার্য হওয়ার বিষয়টি তার পরিবারকে না জানিয়ে নিজে নিজে ফরম পূরনের জন্য স্কুলের অধ্যক্ষ সুলতান মিয়ার কাছে গিয়ে ধারস্থ হয়েছিলেন। গতকাল রবিবার ছিল ফরম পূরনের শেষ দিন। শেষ দিনে ফরম পূরন করতে না পারায় ক্ষোভে ও লোকলজ্জার ভয়ে রবিবার ১০ ডিসেম্বর রাতে ঘরের আড়ার সাথে দড়ি পেচিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here