নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি’র সিনিয়র সহ সভাপতি এড. সাখাওয়াত হোসেন খানকে উদ্দেশ্য করে সভাপতি এড. আবুল কালাম বলেছেন, আমাদের একজন কর্মী আছে, যিনি নিজেকে নিজে দলীয় প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করে ফেলেছেন। ওনার বক্তব্যে তেমন কথাই ফুটে উঠে। ওনি স্বঘোষিত প্রার্থী। ওনি এর আগের সম্মেলনে উপস্তিত ছিলেন না। এ সম্মেলনেও অনুপস্থিত। আলিরটেক এবং গোগনগরে দুইটি কমিটি অনুমোদন দিয়েছি। বন্দরেও শীঘ্রই কমিটি দেয়া হবে।
নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি’র কর্মী সম্মেলনে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। শনিবার (২০ জানুয়ারী) বিকেলে নারায়ণগঞ্জের বন্দর হেভেন কমিউিনিটি সেন্টারে এই কর্মী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

এড. আবুল কালাম আরো বলেন, আজকে যদি বলতে হয় বাংলাদেশে রাজনীতি আছে, রাজনৈতিক দল আছে, সবকিছুর প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান। বাংলাদেশে যতো রাজনৈতিক দল আছে, সবকিছুর প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান। দলকে সুসংগঠিত করার জন্য তিনি সারা দেশের সকল নেতৃবৃন্দকে একত্রিত করে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। তিনি বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রতিষ্ঠাতা। আমি মনোনয়ন প্রার্থী। ৬ বার মনোনয়ন পেয়ে ৩বার নির্বাচিত হয়েছি। এই দেশের সন্ত্রাস, গুম, খুন, হামলা মামলা বিলুপ্তি করতে গেলে খালেদা জিয়ার সরকারের বিকল্প নাই। এই সরকার সোজা আঙ্গুলে ঘি উঠতে দিবে না। আন্দোলন সংগ্রামে মাঠে থাকার পাশাপাশি নির্বাচনেও মাঠে থাকতে হবে। এ দেশে গণতন্ত্র নাই। বাক স্বাধীনতা নাই। বিচার বিভাগ অস্তিত্ব হারিয়ে ফেলেছে। কোথায় আমাদের অধিকার। কেন আমরা নাগরিক অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে পারি না। এসব অধিকার ফিরে পেতে বিএনপি সরকারকে পূনরায় নির্বাচিত করতে হবে। শহীদ জিয়া যোদ্ধা নয়, এমন নির্লজ্জ রাজনীতি করতে পারে, তারা কখনো গণতান্ত্রিক ধারায় রাজনীতি করে বলে মনে হয় না। আন্দোলণ এবং নির্বাচন কোনটাতেই নারায়ণগঞ্জ-৫ আসন পিছিয়ে নেই। আমি নেত্রীকে আশ্বস্ত করে বলতে চাই, আমি না থাকলেও আমার নেতৃত্ব থাকবে।

নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি’র সভাপতি আবুল কালাম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মী সম্মেলনে প্রধাণ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিষ্টার মওদুদ আহমেদ। উপস্থিত ছিলেন কমিটির সহ সভাপতি এড. জাকির হোসেন, এ্যাড. সরকার হুমায়ুন কবির, আতাউর রহমান মুকুল, নুরুদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সবুর সেন্টু, দপ্তর সম্পাদক হান্নান সরকার, সুলতান মাহমুদ, বন্দর থানা বিএনপি নেতা এ্যাড. আনিসুর রহমান মোল্লা, সাবেক ছাত্রনেতা আনোয়ার হোসেন আনু, মহানগর যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক সরকার আলম, মহানগর ছাত্রদলের আহ্বায়ক আবুল কায়সার আশা, ছাত্রদল নেতা জনি, দর্পণ প্রমূখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here