নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি, সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি : সিদ্ধিরগঞ্জে একটি পোশাক কারখানার শ্রমিক এবং ওই কারখানার কর্মকর্তাদের সাথে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।
বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় সিদ্ধিরগঞ্জ পুল এলাকায় এম এস টাওয়ারে অবস্থিত সাবা নিটওয়্যার নামক একটি তৈরি পোশাক কারখানায় শ্রমিক ও কর্মকর্তাদের মধ্যে ওই সংঘর্ষের ঘটনাটি ঘটে। এতে করে ওই কারখানার শ্রমিক ও কর্মকর্তা সহ উভয় পক্ষের ১৪ জন আহত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

শ্রমিকদের মধ্যে আহতরা হলো ইসমাইল, চম্পা, সুমন, লাইজু ও আয়শা। এবং কর্মকর্তাদের মধ্যে আহতরা হলো মেজবাউল হুদা, তরিকুল ইসলাম, রাসেল, সুমন, নোমান, জসিম, মোতালেব, মাহমুদুর, সোহেল।

এ ঘটনায় নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন শ্রমিক অভিযোগ করে, বুধবার কারখানাটির দুই জন কর্মকর্তা মেজবাউল হুদা এবং তরিকুল শ্রমিকদের নিয়ন্ত্রনের জন্য বহিরাগতদের কারখানায় নিয়ে আসে। পরবর্তীতে কাজ শেষে শ্রমিকরা যখন বাইরে বের হয় বহিরাগতদের সাথে শ্রমিকদের বাক বিতন্ডা ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

পরবর্তীতে তারা বৃহস্পতিবার সকালে শ্রমিকরা কারখানায় গিয়ে মেজবাউল হুদা এবং তরিকুলকে বহিরাগতদের বিষয়ে জিজ্ঞাসার এক পর্যায়ে উভয় পক্ষের মধ্যে কথাকাটাকাটির সৃষ্টি হয় এবং মারামারির ঘটনা ঘটে। এ বিষয়ে সাবা নিটওয়্যারের পরিচালক আবুল কাশেম বলেন, শ্রমিকদের ওই অভিযোগ মিথ্যা। কোনো বহিরাগতদের এই কারখানায় আনা হয় নি। তারা মিথ্যা অভিযোগ করছে। তবে আজকে (বৃহস্পতিবার) উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

এতে আমার শ্রমিক ও কর্মকর্তা উভয়ই আহত হয়েছে। এ বিষয়ে আমরা আলোচনা করে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। গার্মেন্ট শ্রমিক সূত্রে জানাগেছে, সিদ্ধিরগঞ্জের চাঁনটাওয়ার এলাকার জনৈক বাহারের ছেলে মাদকাসক্ত মুন্নার নের্তৃত্বে শাওন, শফিকুল, সুমন, ইসমাইলসহ ৪/৫ জন বখাটে প্রতিদিন গার্মেন্ট ছুটির পর সিদ্ধিরগঞ্জের এম এস টাওয়ারে অবস্থিত সাবা নিটওয়্যারের সামনে আড্ডা দিত। এসময় তারা ঐ গার্মেন্ট থেকে বাহির হওয়া নারী শ্রমিকদের ইভটিজিং করতো। বুধবার বিকালে গার্মেন্ট ছুটির পর বখাটে মুন্নার নেতৃত্বে ঐ বখাটেরা নারী শ্রমিকদের সিগারেটের ধুয়া দিয়ে ইভটিজিং করছিল। এসময় স্থানীয় কয়েকজন যুবক ঐ বখাটেদের এহেন কর্মকান্ডের প্রতিবাদ করে। এক পর্যায়ে স্থানীয় যুবকদের সাথে ঐ বখাটেদের হাতাহাতি হয়। পরে ঐ যুবকরা এ ব্যাপারটি গার্মেন্টের ভবন মালিক রনির কাছে অভিযোগ করে।

এতে বখাটে মুন্নার নেতৃত্বে আসা বখাটেরা ক্ষীপ্ত হয়ে পড়ে। পরবর্তীতে তারা গতকাল সকাল ৯ টায় মালিক পক্ষের লোকজন শ্রসিকদের উরপ অতর্কিত হামলা চালায়। এসময় গার্মেন্টের দারোয়ানসহ গার্মেন্টের শ্রমিকরা তাদের প্রতিহত করে। এতে বখাটে ইসমাইল, শ্রমিক চম্পা, সুমন, লাইজু, আয়শা, কর্মকর্তা মেজবাউল হুদা, তরিকুল ইসলাম, রাসেল, সুমন, নোমান, জসিম, মোতালেব, মাহমুদুর ও সোহেল আহত হয়।

খবর পেয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার এসআই ফয়সালসহ সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ ঐ গার্মেন্টে গেলে তারা পালিয়ে যায়। এবিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার পরিদর্শক আব্দুস সাত্তার জানান, সিদ্ধিরগঞ্জ পুল এলাকার সাবা নিটওয়্যারে শ্রমিক ও কর্মকর্তাদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনাটি সত্য।

তবে এখনো কোনো পক্ষই লিখিত কোন অভিযোগ দেয় নাই। অভিযোগ পেলে আমরা পরবর্তী ব্যাবস্থা নিবো। এলাকাবাসী জানায়, মুন্না একজন মাদকসেবী। সে সিদ্ধিরগঞ্জ পুল টু আব্দুল আলীপুল চলাচলরত আটো রিক্সা থেকে আওয়ামীলীগের এক নেতার নাতী পরিচয় দিয়ে ৫০ টাকা করে চাঁদা আদায় করে। ঐ সড়কে প্রতিদিন প্রায় ৩০০ শতাধিক ব্যাটারী চালিত অটোরিক্সা (ইজিবাইক) চলাচল করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here