নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: ছোট্ট নগরী নারায়ণগঞ্জে দীর্ঘ যানজটে দূর্ভোগ যেন বহু বছরের সঙ্গী হয়ে আছে নগরবাসীর। তবে এবার সেই দূর্ভোগের সঙ্গীকেই পরিত্যাগের অবিশ^াস্য স্বপ্নই দেখিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ-৫ (সদর-বন্দর) আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা একেএম সেলিম ওসমান।
যিনি আগামীকাল ইংরেজী নববর্ষের দিন থেকেই নগরবাসীকে যানজট মুক্ত নগরী উপহার দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

কিন্তু আদৌ কি পারবেন সেলিম ওসমান ওসমান, নগরবাসীকে নববর্ষের দিন যানজট মুক্ত নগরী উপহার দিতে?

কেননা, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন মেয়র ডা: সেলিনা হায়াত আইভীর অনুরোধে শহরের নিতাইগঞ্জ থেকে সেলিম ওসমান ট্রাক স্ট্যান্ড উঠানোর পর নগরীর যানজট কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসলেও নগরীর প্রধান সড়ক জুড়ে দু’ধারেই অবৈধ ভাবে গাড়ী পার্কিং করে রাখায় এখন নিত্য যানজটে সাধারন যাত্রীদের চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।

শুধু সড়কই নয়, সাধারন মানুষের চলাচলের জন্য ব্যবহৃত নগরীর ফুটপাত গুলোও এখন ব্যবহৃত হচ্ছে মোটর সাইকেল ও গাড়ীর পার্কিং স্থান হিসেবে। আর দোষ দেয়া হচ্ছে শুধু হকারদের।

এখন পুলিশের উচ্ছেদ অভিযান অব্যাহত থাকায় নগরীর ফুটপাত ফাঁকা থাকলেও ফুটপাতের উপর এখন অবৈধ ভাবে ব্যাক্তিগত বিভিন্ন যানবাহন পার্কিং করে রাখা হচ্ছে।

যদিও নগরীর সড়কে এবং ফুটপাতের উপর অবৈধ ভাবে পার্কিং করে রাখা যানবাহন গুলোকে জরিমানা করার পাশাপাশি ডাম্পিংয়ের লক্ষ্যে ট্রাফিক বিভাগ অভিযান পরিচালনা করছে, তবুও এই অভিযান অবৈধ পার্কিং রোধে কতটুকু সফল হবে তা সময়েই দৃশ্যমান হবে বলে মন্তব করেন সচেতন মহল।

কারন, হকারদের পাশাপাশি অবৈধ পার্কিং স্থল হিসেবে ফুটপাতও বেদখল হয়ে যাচ্ছে মোটর সাইকেল ও ব্যাক্তিগত গাড়ী চালকদের কাছে।

শহরের চাষাঢ়া থেকে ২নং রেল গেইট পর্যন্ত নগরীর প্রধান সড়কের দু’ধারের মধ্যে চাষাঢ়ায় মার্ক টাওয়ারের সামনের ফুটপাতে সারিবদ্ধ ভাবে মোটর সাইকেল পার্কিং করে রাখা হচ্ছে।

এছাড়াও চাষাঢা পেট্টোল পাম্পের সামনের সড়কটি ভাড়ায় চালিত বিভিন্ন গাড়ীর অঘোষিত স্ট্যান্ড হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। আর পপুলার ডায়াগনষ্টিক সেন্টার, বাঁধন কমিউনিটি সেন্টার, উকিলপাড়া মোড়, ২নং রেলগেটস্থ মিড টাউন কমপ্লেক্সের সামনে ঘন্টার পর ঘন্টাব্যাপী বিভিন্ন যানবাহন পার্কিং করে রাখা হচ্ছে।

অপরদিকে, চাষাঢ়া খাজা সুপার মার্কেটের সামনে লেগুনা গাড়ীর অবৈধ স্ট্যান্ড, সুগন্ধা প্লাস রেস্টুরেন্টের সামনে বিভিন্ন গাড়ীর পার্কিং, আমলাপাড়া মোড়ে আমিজ ভবনের সামনে দিনভর এস এ পরিবহন কুরিয়ার সার্ভিসের মালামাল লোড আনলোডের ট্রাকসহ মালামাল রাখা এবং ২ নং রেলগেট পর্যন্ত সড়কে ফাঁকে ফাঁকে এক সারিতে ভ্যান গাড়ী, প্রাইভেটকার রাখার কারনে যানজট প্রতিনিয়তই লেগে থাকছে।

এছাড়াও শহরের কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালের সামনে থেকে ২ নং রেলগেট পর্যন্ত বিভিন্ন পরিবহনের বাস সারিবদ্ধ ভাবে পার্কিং করে রাখা এবং ফলপট্টী থেকে দ্বিগুবাবুর বাজারের মোড় পর্যন্ত ট্রাক পার্কিং করে মালামাল লোড আনলোড করা, কালীবাজার এলাকায় দিনের বেলায় ট্রাফিক পুলিশকে চাঁদা দিয়ে অটোরিক্সার প্রবেশ করার সুযোগ সৃষ্টির কারনে উক্ত সড়ক দিয়েও হরহামেশা যানজট লেগেই থাকছে।

তাই নিতাইগঞ্জ থেকে ট্রাক স্ট্যান্ড উচ্ছেদের মত পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী নববর্ষের দিন সেলিম ওসমানের যানজট মুক্ত নগরী উপহার দেখার অপেক্ষায় প্রহর গুণছে নগরবাসী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here