নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: কথায় আছে- ‘বড়র গুণ বিফলে যায় না’। ঠিক যেন তেমনটাই দেখতে পেলেন রাজনীতিবিদরা।
অভিমান থাকলেও তা ভুলে গিয়ে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাংসদ সেলিম ওসমানের সাথে এক টেবিলে বসে রীতিমত সবাইকেই যেন হতবাক করে দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন মেয়র ও নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগ সহ-সভাপতি ডা: সেলিনা হায়াত আইভী, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও মহানগর আওয়ামীলীগ সভাপতি আলহাজ¦ আনোয়ার হোসেন এবং সাধারন সম্পাদক এড. খোকন সাহা।

আর তাই এখন রাজনীতি বিমুখ এমপি সেলিম ওসমানকে রাজনৈতিক ‘ম্যাজিসিয়ান’ হিসেবে আখ্যায়িত করতে চাইছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। কারন হিসেবে তারা বলেন, যেখানে সাংসদ শামীম ওসমান সম্প্রতি এতটা চেষ্টা করেও আইভী, আনোয়ার হোসেন কিংবা খোকন সাহাকে শোক র‌্যালীতে আনতে পারেন নি, সেখানে মনমালিন্য থাকা সত্ত্বেও সেলিম ওসমান তাদের সাথে একত্রে বসে দেখিয়ে দিয়েছেন। যা একজন রাজনীতিবিদের বড় গুণের বহি:প্রকাশ। তাই সেলিম ওসমানকে রাজনৈতিক ‘ম্যাজিসিয়ান’ উপাধি দেয়া অস্বাভাবিক কিছু নয়।

জানাগেছে, নারায়ণগঞ্জের রাজনীতিতে ক্ষমতাধর ও ঐতিহ্যবাহী ওসমান পরিবারের সাথে দীর্ঘ বছরের বিরোধ ছিল নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন মেয়র ডা: সেলিনা হায়াত আইভীর। যেই কারনে এমপি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে উন্নয়ণের স্বার্থে প্রায় তিন বছর যাবত সেলিম ওসমান আইভীকে এক টেবিলে বসার আহবান জানিয়ে আসলেও তাতে মেয়র সাড়া দেননি।

কিন্তু ওসমান পরিবারের সাথে মহানগর আওয়ামীলীগ সভাপতি আলহাজ¦ আনোয়ার হোসেন ও সাধারন সম্পাদক এড. খোকন সাহার সম্পর্ক ভাল থাকলেও সম্প্রতি মহানগর যুব মহিলালীগের একটি কমিটি গঠন ইস্যুতে শামীম ওসমানের সাথে তাদের সম্পর্কে বৈরীতা সৃষ্টি হওয়ার পর তা সেলিম ওসমানের উপর গিয়েও গড়ায়।

তন্মধ্যে ওসমান ভ্রাতৃদ্বয়কে উদ্দেশ্য করে মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এড. খোকন সাহা ও সাংগঠনিক সম্পাদক এড. মাহমুদা মালার ‘গালাগাল’ করার একটি অডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ফাঁস হয়ে যাওয়ায় রাজনীতিতে নতুন করে ছড়িয়ে পরে উত্তাপ।

পরবর্তীতে খোকন সাহা ও মালাকে সেলিম ওসমান ‘গালিগালাজ’ করার অপরাধে ‘ক্ষমা’ চাওয়ার আহবান জানালেও তাতে কর্ণপাত না করে তারা উল্টো কারো কাছেই ‘ক্ষমা’ না চাওয়ার ঘোষণা দেন।

শুধু তাই নয়, রাজনৈতিক শিষ্য বলে সেলিম ওসমানকে সম্বোধন করলেও গত মাসে বন্দরে দলীয় একাধিক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে গুরু দাবীদার মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ¦ আনোয়ার হোসেনও জাতীয় পার্টির এই এমপির করেন তুমুল বিরোধীতা। বন্দরে আওয়ামীলীগকে কুক্ষিগত করে জাতীয় পার্টিকে প্রতিষ্ঠিত করার অভিযোগও সেলিম ওসমানের বিরুদ্ধে করেন তিনি। দাবী জানান, আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ‘নৌকার’ প্রার্থী দেয়ার।

কিন্তু এত কিছুর পরেও আশাহত হননি সেলিম ওসমান। যেই কারনে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই, সহ-সভাপতি ডা: সেলিনা হায়াত আইভীসহ মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ¦ আনোয়ার হোসেন ও সাধারন সম্পাদক এড. খোকন সাহার সাথে এক টেবিলে বসতে পেরেছিলেন সেলিম ওসমান।

গত ১৬ সেপ্টেম্বর নারায়ণগঞ্জ ক্লাব কমিউনিটি সেন্টারে আসন্ন শারদীয় দূর্গোৎসব উপলক্ষ্যে নারায়ণগঞ্জ জেলা পূজা উদযাপন পরিষদ আয়োজিত মতবিনিময় সভায় মহানগর আওয়ামীলীগ সভাপতি আলহাজ¦ আনোয়ার হোসেন ও সাধারন সম্পাদক এড. খোকন সাহাকে একসাথে নিয়ে এক টেবিলে প্রধান অতিথি হিসেবে বসেছিলেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের জনপ্রতিনিধি সেলিম ওসমান এমপি।

আর পূর্ব ঘোষণা দিয়ে গত ২৩ জুলাই নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের বাজেট অনুষ্ঠানে মেয়র ডা: সেলিনা হায়াত আইভীর সাথে এক মঞ্চে বসে আগামী দিনে নারায়ণগঞ্জের উন্নয়ণে পরস্পরকে সহযোগিতা করার ঘোষণা দেন সেলিম ওসমান এমপি।

কিন্তু প্রত্যাশা থাকলেও চেষ্টা করে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে নগরীর ইতিহাসে অনুষ্ঠিত স্মরণ কালের সর্ববৃহৎ শোক র‌্যালীতে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের আওয়ামীলীগের সাংসদ আলহাজ¦ একেএম শামীম ওসমান তার নিজের পাশে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই, সহ-সভাপতি ডা: সেলিনা হায়াত আইভী, মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ¦ আনোয়ার হোসেন ও সাধারন সম্পাদক এড. খোকন সাহার উপস্থিতি ঘটাতে পারেন নি।

তবে এজন্য অবশ্য তাৎক্ষনিক ভাবে মর্মাহত হলেও শামীম ওসমান এখনও আশাবাদী যে, আগামীতে দলীয় যে কোন অনুষ্ঠানে অতীত বিভেদ ভুলে আব্দুল হাই, আইভী, আনোয়ার হোসেন, খোকন সাহাসহ সকল নেতৃবৃন্দরাই উপস্থিত থাকবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here