নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি, সোনারগাঁও প্রতিনিধি: সোনারগাঁওয়ে কে রাজাকার, কে জামাত-শিবির আর কে আওয়ামীলীগের তা এখনই জনগণের বুঝে নেয়ার সময়। ২ হাজার টাকায় মুজিব কোর্ট কিনে গায়ে জরিয়ে এখন সোনারগাঁওয়ে জামাত-বিএনপি রাজাকারের পরিবারের সন্তানরা আওয়ামীলীগের পরিবারে ঢুকে আওয়ামীলীগকে ধ্বংস করার পাঁয়তারা করছে। ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুর সাথে যেসব স্বার্থপর বেঈমানরা তাঁর পরিবারের মানুষ হয়ে তাকে স্বপরিবারে নির্মমভাবে হত্যা করেছিলো সেই ঘটনার মতোই সোনারগাঁও উপজেলা আওয়ামীলীগে কিছু রাজাকার পরিবারের সন্তানরা এবং বিএনপি জামাতের লোক মিলিত হয়ে সোনারগাঁও আওয়ামীলীগকে ধ্বংশ করতে চাইছে। জনগণকে এখনই বুঝতে হবে কারা রাজাকার,কারা জামাত-বিএনপি কারা প্রকৃত আওয়ামীলীগ। এসব হাইব্রিড জামাত-বিএনপি,রাজাকারের উত্তরসূরীদের নিয়ে গঠিত তথা কথিত আহবায়ক কমিটিকে বয়কট করে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের আওয়ামীলীগের ছায়াতলে সবাইকে আসার আহবান জানাচ্ছি।

শনিবার (১৫ই আগষ্ট) জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে সোনারগাঁও উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্মাব হফুজুর রহমান কালাম তার বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

এসময় তিনি আরও জানান, জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে আজ সারা সোনারগাঁওয়ে আমি আমার নেতাকর্মীদের নিয়ে ১৫০টি স্পটে মিলাদ মাহফিল ও কাঙ্গালী ভোজের আয়োজন করেছি। আমি ছাত্র জীবন থেকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে নিয়ে আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত আছি ভবিষতেও থাকবো ইনশাআল্লাহ।

নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে শত শত নেতাকর্মী নিয়ে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ণে গাড়ীর বহর নিয়ে শোক সভায় অংশ নেন মাহফুজুর রহমান কালাম।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, জেলা পরিষদের সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান মাসুম, জেলা যুব আইনজীবি পরিষদের সভাপতি এডভোকেট ফজলে রাব্বি,সাবেক চেয়ারম্যান সাহাবুদ্দীন সাবু,উপজেলা বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি আজিজুল ইসলাম মুকুল,উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রাসেল মাহমুদ সহ আরও অনেকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here