নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি, বন্দর প্রতিনিধি: বন্দরে পৃথক ২টি স্থানে স্কুলছাত্রী ও র্গামেন্টসকর্মী ধর্ষনের ঘটনা ঘটেছে। র্গামেন্টস কর্মী ধর্ষনের ঘটনায় পুলিশ লম্পট ধর্ষক বিল্লাল হোসেন (২২)কে গ্রেপ্তার করেছে।
সোমবার সকালে ধর্ষিতা স্কুল ছাত্রী মা সুলতানা বেগম ও অপর একটি মামলায় ধর্ষিতা নিজেই বাদী হয়ে বন্দর থানায় পৃথক ২টি মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং- ২১ (৮)১৭ ধারা- নারী ও শিশু নির্যাতন দমন (সংশোধনী) আইন ২০০৩ এর ৯(১)/১০ ও অপর মামলা নং- ২৪(৮)১৭ ধারা- নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধনী/০৩) এর ৯(১)।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, বন্দর থানার বালিগাও এলাকার রিপন মিয়ার মেয়ে মালিবাগ কেরামতিয়া উচ্চ বিদ্যলয়ে ১০ শ্রেণীতে লেখাপড়া করে আসচ্ছে। এ সুবাদে একই এলাকার মোহাম্মদ আলী মিয়ার ছেলে মাসুদ মিয়ার সাথে স্কুল ছাত্রীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। এর ধারাবাহিকতায় গত ২৫ জুলাই রাত ৮টায় মাসুদ কৌশলে স্কুল ছাত্রী বাসায় প্রবেশ করে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষন করে। এ ছাড়াও লম্পট মাসুদ ৬ আগষ্ট বেলা দেড়টায় মালিবাগ হইতে বালিগাওস্থ কাঁচা রাস্তার দক্ষিন পার্শ্বের জঙ্গলে নিয়ে উক্ত স্কুল ছাত্রীকে একাধিক বার ধর্ষন করে। পরে স্কুল ছাত্রী বিষয়টি তার পিতা মাতাকে জানালে এ ঘটনায় ধর্ষিতা স্কুল ছাত্রী মা সুলতানা বেগম বাদী হয়ে লম্পট ধর্ষক মাসুদ (২০)কে আসামী করে সোমবার সকালে বন্দর থানায় মামলা দায়ের করে।

এ ছাড়াও গত রোববার দুপুরে বন্দর রেললাইনস্থ হাজী মার্কেটে এক হোসিয়ারিতে র্গামেন্টস কর্মী (২০) ধর্ষনের শিকার হয়েছে। এ ঘটনায় ধর্ষিতা র্গামেন্টস কর্মী বাদী হয়ে সোমবার সকালে বন্দর থানায় মামলা দায়ের করলে পুলিশ সকাল ১০টায় বন্দর রেললাইন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ধর্ষক বিল্লাল হোসেনকে গ্রেপ্তার করে। ধৃত লম্পট বিল্লাল বন্দর রেললাইন এলাকার আব্দুর রহমান মিয়ার ছেলে। এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত পুলিশ ধর্ষিতা স্কুল ছাত্রী ও র্গামেন্টকর্মীকে উদ্ধার করে পরিক্ষা নিরিক্ষার জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করেছে। এবং ধৃত লম্পট বিল্লালকে ২৪(৮)১৭ নং মামলায় সোমবার দুপুরে আদালতে প্রেরণ করেছে পুলিশ।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here