নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: শহরের জল্লারপাড় এলাকায় স্কুল নির্মাণের নামে চাদাঁ দাবির অভিযোগ উঠেছে আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী সংগঠনের সভাপতি হাজী নুরুদ্দিনের বিরুদ্ধে। একটি স্কুল নির্মাণকে কেন্দ্র করে প্রভাবশালী হাজী নুরুদ্দিন, মোবারক হোসেন, শিপলু, শুক্কুর, নুর হোসেন সহ আরো কয়েকজনের বিরুদ্ধে সহযোগীতার নামে এই চাঁদা দাবির অভিযোগ করেছে এলাকাবাসী।
এলাকাবাসী সুত্রে জানা যায়, জল্লারপাড় আমহাট্টা ঈদগাহ মাঠে একটি স্কুল নির্মাণের পরিকল্পনা করেন জল্লারপাড়ের বাসিন্দা ও আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী সংগঠনের সভাপতি হাজী নুরুদ্দিন সহ কয়েকজন। আর এই স্কুল নির্মাণকে কেন্দ্র করেই জল্লারপাড়া এলাকায় যারা নতুন করে জমি-জমা ক্রয় করে বাড়ি-ঘর নির্মাণ করছেন বা করেছেন তাদের কাছে স্কুল নির্মাণের জন্য সহযোগীতার নামে বাধ্যতামূলকভাবে বাড়ি প্রতি ২০ থেকে ৩০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করছে বলে জানা যায়। আর এক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশী চাদাঁ দাবী করা হচ্ছে আড়িয়ল থেকে এখানে এসে যারা বাড়ি ঘর নির্মাণ করছেন বা করেছেন তাদের কাছে এমন অভিযোগ স্থানীয়দের।

স্থানীয়রা জানায়, একটি স্কুল নির্মাণের কথা রয়েছে তবে স্কুল নির্মাণকে কেন্দ্র করে কারো কাছে চাদাঁ দাবি করা ঠিক না। যেহেতু স্কুল একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সেহেতু সরকারী উদ্যোগে অথবা ব্যক্তিগত অর্থায়নে নির্মাণ করা উচিৎ। অহেতুক এলাকার জনগনের উপর চাপ দেয়ার কোন মানে হয় না। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বাসিন্দা জানান, জল্লারপাড় এলাকায় বছরে প্রায় তিন থেকে চারটি ভিন্ন ভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। আর এই সকল অনুষ্ঠান আয়োজনের টাকার জন্য চাপ দেয়া হয় এলাকার বাসিন্দাদের।

এলাকার একাধিক এলাকাবাসী তথ্যফাস না হবার অঙ্গিকারে বলেন, নুরুদ্দিন মিয়া একটি সেবামূলক সংগঠনের সভাপতির দায়িত্বে রয়েছে, যেটি নারায়ণগঞ্জের মানুষের বিভিন্ন ন্যায্য দাবি দাওয়া আদায়ে সর্বদা সোচ্চার ভুমিকা পালন করে। তার কাছ থেকে এই ধরনের কর্মকান্ড আমাদের কাম্য নয়।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হয় এই এলাকার কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবুর সাথে। তিনি এই প্রতিবেদককে জানান, আমি লোকমুখে চাদাঁ দাবির বিষয়ে শুনেছি, তবে কেউ আমার কাছে কোন অভিযোগ করে নি। অভিযোগ করলে তদন্ত সাপেক্ষে যদি প্রমাণিত হয় এ ধরনের কাজ কেউ করেছে তবে আমি কঠোর ব্যবস্থা নিবো। আমার এলাকায় মাদক ব্যবসায়ী, সেবী ও চাদাঁবাজদের কোন আশ্রয় নেই। এখানে কোন ধরনের চাদাঁবাজি চলবে না, আমার এলাকায় এ ধরনের কোন অপকর্ম হতে দেয়া হবে না বলেও তিনি হুশিয়ারী উচ্চারণ করেন। কাউন্সিলর এলাকার জনগনের উদ্দেশ্যে বলেন, কেউ কোন চাদাঁ দাবি করলে আপনারা দিবেন না এবং আমার সাথে যোগাযোগ করবেন। আমি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবো।

জল্লারপাড় এলাকার একাধিক এলাকাবাসী তথ্যফাস না হবার অঙ্গিকারে এই প্রতিবেদককে জানান, যারা স্কুল নির্মাণের জন্য চাদাঁ ধার্য্য করেছেন এবং এই চাদাঁ তুলছেন তারা প্রত্যেকেই স্বাবলম্বী। এমনকি চাইলে তারা নিজেরাই বিদ্যালয় নির্মাণ করতে পারেন। তাই এই বাসিন্দা বলেন, যদি কোন উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড করতে হয় তবে নিজ অর্থায়নে করুন, কারো কাছে চাদাঁ তুলে নয়।

এব্যাপারে আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী সংগঠনের সভাপতি হাজী নুরুদ্দিনের যোগাযোগ করা হলে তিনি কোন প্রশ্নের উত্তর না দিয়ে উল্টো এই প্রতিবেদককে বলেন আপনাকে সময় দেয়া হলো আপনি কখন আসবেন, আমার সাথে সাক্ষাৎ করবেন, বলেন। তিনি এই প্রতিবেদককে আরো বলেন, রাখেন আমি আপনার উর্ধ্বতন কর্তপক্ষের সাথে কথা বলছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here