নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার সস্তাপুরে কমর আলী হাই স্কুল এন্ড কলেজে স্কুল ফাঁকি দেয়ার অপরাধে দঁড়ি দিয়ে পা বেঁধে দাঁড় করে রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
জানা যায়, স্কুলের ৯ম শ্রেনীর ছাত্র মাহাফুজ ২০ আগস্ট রবিবার স্কুলে না এসে সস্তাপুর মোড়ে কাজী স্টোরে আড্ডা মারছিল।

এ সময় কলেজ শাখার প্রভাষক আল মামুন দেখে মাহাফুজকে ধরে জিজ্ঞাসা করে কেন স্কুলে যায়নি। তখন মাহাফুজ জানায় সে ব্যাচ পড়তে এসেছে। শিক্ষক আল মামুন মাহাফুজের মা- বাবার মোবাইল নাম্বার চাইলে দৌড় দিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেস্টা করে। পরে শিক্ষক আল মামুন মাহাফুজকে স্কুলে নিয়ে পায়ে দড়ি দিয়ে বেধে মাঠে দাড় করিয়ে রাখে। অথচ সরকারী ভাবে নিষেধ আছে কোন ছাত্রকে শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন করা যাবেনা।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত শিক্ষক আল মামুন বলেন, স্কুল ফাঁকি দিয়ে আড্ডা মারায় কাজী স্টোর হতে ধরে এনে একটু শাস্তি দেয়া হয়েছে যেন অন্যরা ভয় পায় এবং স্কুল না পালায়।

এ ব্যাপারে কমর আলী হাই স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ নৃপেন্দ্র নাথ ভদ্র বলেন, যখন ঘটনা ঘটে আমি স্কুলে ছিলাম না, ঘটনাটি সর্ম্পকে পরে শুনেছি।

এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সুরাইয়া আশরাফি জুলি বলেন, আমাকে কেউ জানায় নি। এই মাত্র জানলাম বিষয়টি দেখবো।

সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাসনিম জেবিন বিনতে শেখ বলেন, শিক্ষা অফিসার ঘটনা তদন্ত করে জানালে ব্যবস্থা নিব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here