নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) রেজাউল বারী বলেছেন, ‘স্কুলের শিক্ষার্থীদের হাতে কোনভাবেই মোবাইল ফোন দেওয়া যাবে না। ১৮ বছরের নীচে কারো মোবাইল ব্যবহারের প্রতি সরকারী নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। তাই প্রতিটি অভিভাবককে বলবো, আপনাদের সন্তানদের স্কুলে পাঠিয়ে দিয়ে সকল দায়িত্ব শিক্ষকদের ঘাড়ে চাপিয়ে নিশ্চিন্ত বসে থাকবেন না। সন্তানেরা কার সাথে মিশছে, কোথায় যাচ্ছে সেসব বিষয়েও খেয়াল রাখতে হবে।’

আদর্শ স্কুল নারায়ণগঞ্জের বার্ষিক পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধাণ অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

শনিবার (১১ নভেম্বর) বিকেলে স্কুল মাঠে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।


অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) রেজাউল বারী আরো বলেন, ‘একটি পরিবারের সন্তান যদি মাদকাসক্ত হয়ে যায়, তাহলে পুরো পরিবারটি ধ্বংস হয়ে যায়। তাই প্রতিটি অভিভাবকের উচিত তাদের সন্তানদের প্রতি বাড়তি সচেতনতা গ্রহন করা। তাছাড়া শিক্ষকদেরও দায়িত্ব নিয়ে নিধারিত পাঠদানের পাশাপাশি মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ বিষয়ে শিক্ষার্থীদেরকে সচেতন করতে হবে। এবং ছাত্রছাত্রীরা যাতে পড়ালেখার সাথে সাথে খেলাধুলা ও সাহিত্য চর্চা করার সুযোগ পায়, সে বিষয়ে দৃষ্টি দিতে হবে। কারন শিক্ষার্থীদের সুপ্ত প্রতিভার বিকাশ ঘটাতে পারলে তারা মাদক ও জঙ্গিবাদ থেকে দুরে থাকবে।’

সভাপতির বক্তব্যে স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সহিদুর রহমান বলেন, ‘অভিভাবকরা নিজেদের মা-বাবা না ভেবে সন্তানদের বন্ধু হওয়ার চেষ্টা করুন। তাদের সাথে ঘনিষ্টভাবে মিশুন। তারা স্কুলের ব্যাগ নিয়ে বেড়িয়ে স্কুলে যাচ্ছে, নাকি স্কুলের নাম করে অন্য কোথাও সময় কাটাচ্ছে, সে বিষয়ে খোঁজ নিন। কারন এখন ঈদগাহ মাঠ থেকে তোলারাম কলেজ পর্যন্ত ফার্ষ্ট ফুডের দোকানের অভাব নেই। আর শিক্ষকদেরও বাড়তি নজরদারী থাকতে হবে শিক্ষার্থীদের গতিবিধির উপর।’

স্কুলের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আজিজুর রহমানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠিত পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির অভিভাবক প্রতিনিধি শাহজালাল প্রধান, সিনিয়র শিক্ষক সফিকুর রহমান, তোফাজ্জল হোসেন, নুরুল ইসলাম, মোশারফ হোসেন, উমর ফারুক, মো: শহিদুল্লাহ, আশেকে এলাহী, মনিরুল আলম প্রমূখ।

আলোচনা শেষে শিক্ষার্থীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন অতিথিরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here