নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: অসম্পূর্ণতার কারনে হকারদের দেয়া নামের তালিকা গ্রহণ করেননি জেলা প্রশাসক মো: রাব্বী মিয়া। উপরন্তু হকার নেতাদের পরিপূর্ণ ভাবে তালিকা প্রণয়নে করনীয় বিভিন্ন দিকনির্দেশনা প্রদান করেন তিনি।
রবিবার (৭ জানুয়ারী) সকাল ১১ টায় নারায়ণগঞ্জ জেলা হকার্স সংগ্রাম পরিষদের উদ্যোগে প্রস্তুতকৃত নগরীর ২২৯২ জন হকারের জীবন-বৃত্তান্ত, ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি ও এককপি পাসপোর্ট সাইজের ছবিসহ নামের তালিকা নিয়ে হকার নেতারা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে জেলা প্রশাসকের নিকট জমা দিতে যান।

কিন্তু তালিকাটি অসম্পূর্ণ থাকায় তখন জেলা প্রশাসক তা গ্রহণ করেননি।

এসময় জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া হকার নেতাদের ক্রমিক নং অনুসারে ছক করে হকারদের নাম, ভোটার আইডি নম্বর, ঠিকানা এবং ফোন নাম্বার উল্লেখ করে পুনরায় তালিকা প্রস্তুত করে জমাদানের পরামর্শ দেন।

পরবর্তীতে নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিউনিষ্ট পার্টির সভাপতি কমরেড হাফিজুল ইসলাম ও নারায়ণগঞ্জ জেলা হকার্স সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি মো: আসাদুল ইসলাম আসাদ শীতের এই সময়ে প্রতিদিন বিকেলের পর ফুটপাতে বসে মালামাল বিক্রির জন্য জেলা প্রশাসকের নিটক অনুমতি প্রার্থণা করেন।

তখন জেলা প্রশাসক একক ভাবে কোন অনুমতি দিতে পারেন না বলে হকার নেতাদের জানান। তিনি বলেন, ‘হকারদের সমস্যা সমাধানে সিটি কর্পোরেশন, পুলিশ প্রশাসন, জনপ্রতিনিধিসহ আরা সকলেই চেষ্টা করছি। তাই আমি একা হকারদের ফুটপাতে বসার নির্দেশ দিতে পারি না।’

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, জেলা শ্রমিক ফ্রন্ট সভাপতি আবু নাঈম খান বিপ্লব, মহানগর হকার্সলীগ সভাপতি আব্দুর রহিম মুন্সী প্রমুখ।

এরআগে পুনর্বাসনের পূর্বে উচ্ছেদ বন্ধের দাবীতে জেলা প্রশাসকের কাছে গত সপ্তাহে স্মারকলিপি প্রদান করেছিলেন নারায়ণগঞ্জ হকার্স সংগ্রাম পরিষদের নেতৃবৃন্দ। তারপর জেলা প্রশাসক গত বুধবার হকার নেতাদের তলব করে পুনর্বাসনের লক্ষ্যে সকল হকারদের একটি তালিকা জমা দেয়ার নির্দেশ দেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here