নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী ডিআইটি জামে মসজিদের সামনের রাস্তা ও ফুটপাত দখল করে রাখা হকারদের কারনে সীমাহীন ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে মসজিদে আগত মুসল্লিদের। বিশেষ করে জু’মার বার হকারদের ফুটপাতসহ রাস্তা দখলের মাত্রাটা বেড়ে গেলেও আসন্ন রমজানকে ঘিরে এখন থেকেই পাকাপোক্ত ভাবে বসার ব্যবস্থা করে নিয়েছেন হকাররা।
শুক্রবার (২৬ মে) বাদ জুম্মা সরেজমিন ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করে এমনই চিত্রের দেখা মিলেছে।

ঘটনার বিবরনে প্রকাশ, নারায়ণগঞ্জের ডিআইটি মসজিদ একটি ঐতিহ্যবাহী মসজিদ। শুক্রবার দূর দুরান্ত থেকে মুসুল্লিরা এখানে আসেন জুম্মার নামাজ আদায়ের জন্য। কয়েক হাজার মুসুল্লির পদভারে মূখরিত হয়ে উঠে পুরো ডিআইটি অঙ্গণ। অথচ মসজিদে প্রবেশের ফটকটি খুব ছোট। এ কারনে মুসুল্লিদের মসজিদে প্রবেশ করতে এবং নামাজ শেষে মসজিদ থেকে বের হতে বেশ বেগ পেতে হয়।

মসজিদের গেইট সংলগ্ন ফুটপাত পুরোটাই দখল করে রেখেছে হকাররা। নানা পণ্যের পসরা সাজিয়ে তারা বসে থাকেন ক্রেতার আশায়। পাজামা-পাঞ্জাবীর কাপড়, টুপি, তজবিহ, লুঙ্গি, গেঞ্জি, আখের রস, মৌসুমী ফলসহ বিভিন্ন পণ্যের হকাররা দখল করে রেখেছে মসজিদে প্রবেশের মূল ফটক। আর এসব হকারদের সামনে ভীর করে দাড়িয়ে থাকে ক্রেতারা। এদের ঠেলে সড়িয়ে মসজিদে প্রবেশ করতে হয় মুসুল্লিদের। এতে করে মসজিদে যাতায়াত করা মুসুল্লিদের পরতে হয় বিড়ম্বনায়। মসজিদের সামনের রাস্তা ও ফুটপাত অবৈধভাবে দখল করে ব্যবসা করার কারন জানতে চাইলে হকাররা রাগের সাথে জানায়, অবৈধ বলবেন না। সদর থানার পুলিশরে টাকা দেই। মাগনা ব্যবসা করতে আসি নাই। আপনেরা দেখেন না, শহরের সব জায়গার হকার উচ্ছেদ হয় কিন্তু এখানকার হকারদের কেউ হাত দিতে সাহস পায় না। আমাদের হাত অনেক লম্বা। আমাদের সাথে লাগতে আসবেন না। হকারদের এ আচরন দেখে বিষ্ময়ে হতবাক হয়ে যান সে সময় সেখানে উপস্থিত মুসুল্লিরা। তারা আক্ষেপের সুরে বলেন, ঘরের সামনে মসজিদ রেখে ডিআইটি মসজিদে আসি নামাজ আদায়ের জন্য। এখানে আসলে অনেক মানুষের সাথে একসাথে নামাজ আদায় করতে পারবো। কিন্তু এভাবে ধাক্কাধাক্কি করে ভীড় ঠেলে যেতে খুবই কষ্ট হয়। তারপর হকারদের এমন উচ্চবাক্য শরীরে জ্বালা ধরিয়ে দেয়। এদের বিরুদ্ধে প্রশাসন কেন ব্যবস্থা নিচ্ছে না তাই রহস্যজনক! সারা শহরের হকারদেও প্রায়ই উচ্ছেদ করা হলেও এখানকার হকাররা কিসের জোড়ে এখনও বহাল তবিয়তে রয়েছে সে প্রশ্ন এখন সর্বত্র।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here