নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর গণবিরোর্ধী সিদ্ধান্ত ও চালসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে আগামী ৩০ নভেম্বর সারাদেশে অর্ধদিসব হরতাল পালনের আহবান জানিয়েছেন সিপিবি-বাসদ ও গণতান্ত্রিক বাম মোর্চা।

সোমবার (২৭ নভেম্বর) বিকাল ৪টায় নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর গণবিরোধী সিদ্ধান্ত বাতিল করা ও চালসহ নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম কমানোর তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন সিপিবি-বাসদ-গণতান্ত্রিক বাম মোর্চার নেতৃবৃন্দ। আগামী ৩০ নভেম্বর সারাদেশে অর্ধদিসব হরতাল পালনের আহবান জানিয়েছেন তারা।

বক্তরা এ সময় বলেন, সমস্ত যুক্তি উপেক্ষা করে সরকার গায়ের জোরে বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর ঘোষনা করেছেন। ২৪ সেপ্টেম্বর গণশুনানিতে আমরা হিসাব করে দেখিছিলাম বিশ্ববাজারে তেলের দাম কমেছে। ফলে বিদ্যুতের উৎপাদন খরচ কমে গেছে। এছাড়া সরকার ভূলনীতি এবং দূর্নীতি পরিহার করলে কমপক্ষে ৭হাজার কোটি টাকা সাশ্রয় করা যাবে। ডিজেলের পরিবর্তে ফার্নেস অয়েল ব্যবহার, বেসরকারী বিদ্যু॥কেন্দ্রের পরিবর্তে রাষ্ট্রীয় বিদ্যু॥কেন্দ্রে গ্যাস সরবরাহ এবং দুর্নীতি, অপচয়, লুটপাটবন্ধ করলে বিদ্যুতের দাম বাড়ানো নয় বরং প্রতি ইউনিট ১টাকা ৫৬ পয়সা দামকমানো সম্ভব।

তারা আরো ভলেন, বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির আঘাত নিন্মবিত্ত,গরীব মানুষের জীবনের ব্যয় আরও বাড়িয়ে দিবে। এতেকরে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ্য হবে গার্মেন্টস সহ শ্রমজীবি মেহনতি মানুষগুলো। বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে বাড়ি ভাড়া, পানির দামসহ নিত্যপয়োজনীয় সকল জিনিসের দাম বাড়বে। আর মুনাফা বাড়বে এক শ্রেণীর লুটেরা ব্যবসায়ীদের। আর তা বহন করবে সাধারন জনগন। এমনিতেই চালসহ নিত্য পয়োজনীয় জিনিসের মূল্যবৃদ্ধিতে জনগন দিশেহারা। এর থেকে মুক্তি পেতে আগামী ৩০ নভেম্বর সারাদেশে সর্বাতœক অর্ধদিসব হরতাল পালনের আহবান জানান তারা।

পরে সিপিবি-বাসদ ও গণতান্ত্রিক বাম মোর্চার নেতৃবৃন্দ হরতালের আহবান জানিয়ে নগরীতে একটি মিছিল করেন।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here