নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: আগামী ৩ ফেব্রুয়ারী নারায়ণগঞ্জে অনুষ্ঠিতব্য নিজ আয়োজিত সমাবেশ স্থগিত ঘোষণা করেছেন নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনের সাংসদ আলহাজ¦ এ কে এম শামীম ওসমান।
মঙ্গলবার (৩০ জানুয়ারী) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ আদালত পাড়ায় আইনজীবী সমিতির নির্বাচনী পরিবেশ পর্যবেক্ষনে গিয়ে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে এই ঘোষণা দেন তিনি।

শামীম ওসমান বলেন, ‘আগামী ৮ ফেব্রুয়ারী বিএনপি চেয়ারপার্সনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলার রায়কে কেন্দ্র করে অশুভ শক্তি সারাদেশে নাশকতার পাঁয়তারা করছে। আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। সেই লক্ষ্যে আগামী ৩ ফেব্রুয়ারীর সমাবেশটি স্থগিত করা হয়েছে। এখানে জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগের শীর্ষস্থানীয় নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত আছেন। তাদের সাথে আলোচনা করে আগামী ৮ ফেব্রুয়ারীর পর সমাবেশের দিনক্ষণ পুনরায় নির্ধারন করা হবে।’

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁ) আসনের সাংসদ আলহাজ¦ লিয়াকত হোসেন খোকা, সংরক্ষিত আসনের সাংসদ এড. হোসনে আরা বাবলী, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই, সাধারন সম্পাদক এড. আবু হাসনাত মো: শহীদ বাদল।

এরআগে, গত ২৭ জানুয়ারী ফতুল্লা পৌর ওসমানী স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত কর্মী সম্মেলনে আগামী ৩ ফেব্রুয়ারী বৃহৎ সমাবেশ করার ঘোষণা দেন শামীম ওসমান।

তিনি বলেছেন, ‘নারায়ণগঞ্জে আওয়ামী লীগ ছিল আছে ও থাকবে। এখানে অন্য কেউ কর্তৃত্ব দেখাতে পারবে না। যারা স্বপ্ন দেখছেন আগামীতে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসবে না তারা বোকা। আগামীতে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসবে এবং শেখ হাসিনাকে আবারও প্রধানমন্ত্রী বানাতে হবে। এজনই আমাদের লড়াই। সেজন্যই ঐক্যবদ্ধতা প্রমাণে আগামী ৩ ফেব্রুয়ারী শহরের আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে বৃহৎ সমাবেশ করা হবে। সেখানে আমি সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াত আইভী, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল হাই, মহানগরের সভাপতি আনোয়ার হোসেন, সেক্রেটারী খোকন সাহা সহ স্বাধীনতার স্বপক্ষের সবাইকে দাওয়াত দিলাম।’

শামীম ওসমান প্রত্যাশা করে এও বলেন, ‘আমি এমন সমাবেশ করতে চাই, যা দেখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বুকটা ভরে যায়। তাই আসেন একত্রে বসি, দলকে ঐক্যবদ্ধ রাখি। গ্রুপিং করতে চাইলে নির্বাচনের পরে করেন। আগে আওয়ামী লীগ ও শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় আনেন। যারা আওয়ামী লীগ করে তাদের সঙ্গে আমার কোন বিভেদ থাকবে না। আমাদের দলের সেক্রেটারীর মতে অনেক হাইব্রীড ঢুকে গেছে। তাই আমরা যদি ঐক্যবদ্ধ থাকি তাহলে নারায়ণগঞ্জে তাদের স্থান হবে না।’

তিনি দাবী করে বলেন, ‘যদি কেউ মনে করেন সমাবেশটি হবে নরমাল তাহলে সেটা যথার্থ না। সে কারণেই ৩ ফেব্রুয়ারীর সমাবেশ আমাদের জন্য বেশ গুরুত্বপূর্ণ। সেদিন অনেক কিছুই বলবো।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here